রাজশাহী বুধবার, ২০শে অক্টোবর ২০২১, ৬ই কার্তিক ১৪২৮


রাজশাহী পোস্টে সংবাদ প্রকাশের পর শোকজ, জবাবে ভুল স্বীকার


প্রকাশিত:
২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১ ১৬:৪৮

আপডেট:
২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১ ১৬:৪৮

ফাইল ছবি

নওগাঁ পত্নীতলার শ্রীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়কে নিয়ে "পত্নীতলায় ভূয়া দাতা সদস্য তৈরী করে স্কুল সভাপতি বানানোর পায়তারা" শিরোনামে রাজশাহী পোস্টসহ বেশ কিছু গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশের পর বিষয়টি আমলে নেয় প্রাথমিক শিক্ষা অফিস। পরে শ্রীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. আবু বকর সিদ্দিককে শোকজ করেন তারা। 

গত ৮ সেপ্টেম্বর রাজশাহী পোস্টসহ একাধিক গণমাধ্যমে পত্নীতলায় ভূয়া দাতা সদস্য তৈরী করে স্কুল সভাপতি বানানোর পায়তারা শিরোনামে প্রকাশিত প্রতিবেদন নজরে আসে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসের। প্রতিবেদনের সূত্র ধরে গত ১৪ সেপ্টেম্বর শ্রীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. নূর আলম সিদ্দিককে শোকজ করে এবং সাত দিনের মধ্যে লিখিত জবাব দিতে বলে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস। প্রধান শিক্ষক আবু বকর সিদ্দিক গত ১৯ সেপ্টেম্বর শোকজ এর লিখিত জবাব দেন এবং জবাবে ভুল স্বীকার করেন।

এ ব্যাপারে পত্নীতলা উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মো. মোকলেসুর রহমান জানান, গণমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদন পাবার পর আমরা শ্রীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ আবু বকর সিদ্দিককে শোকজ করি যে তিনি (প্রধান শিক্ষক) কি ভাবে আবু সাঈদ সাজ্জাদকে দাতা সদস্য বানিয়েছেন। তিনি শোকজ এর লিখিত জবাবে তার ভুল স্বীকার করেছেন।

উল্লেখ্য, শ্রীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. আবু বকর সিদ্দিক নীতিমালাকে পরোয়ারা না করেই আবু সাঈদ সাজ্জাদকে দাতা সদস্য বানিয়েছেন। যেখানে আবু সাঈদ সাজ্জাদ এর দাদা ছিলেন দাতা সদস্য। তার দাদা মারা যাবার পর ওয়ারিশ হিসাবে আবু সাঈদ সাজ্জাদ এর বাবা মো. শামছুল শাহ্ হবেন দাতা সদস্য। বাবা মো. শামছুল শাহ্ জীবিত থাকা অবস্থায় তার ছেলে আবু সাঈদ সাজ্জাদ নীতিমালা অনুযায়ী কোন ভাবেই দাতা সদস্য হতে পারে না।

 

আরপি/এসআর-১১



আপনার মূল্যবান মতামত দিন:

Top