রাজশাহী শুক্রবার, ৩০শে সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৫ই আশ্বিন ১৪২৯


পত্নীতলায় রহস্যজনক অঙ্গিকান্ডে স্ত্রী নিহত


প্রকাশিত:
২২ সেপ্টেম্বর ২০২২ ১৫:০৮

আপডেট:
৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২ ০০:৩০

সংগ্রহীত

নওগাঁর পত্নীতলায় রহস্যজনক অঙ্গিকান্ডে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় স্ত্রী হালিমা খাতুন ( ২০ ) বৃহস্পতিবার মৃত্যু বরণ করেন । স্বামী রিপন মিয়া রাজশাহী মেডিকেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আছেন।

বুধবার ( ২১ সেপ্টেম্বর ) আনুমানিক রাত সারে ৮ টার সময় অঙ্গিকান্ড ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, রিপন মিয়া ও তার স্ত্রী হালিমা খাতুনের চিৎকার শুনে প্রতিবেশীরা বাহিরে এস দেখে স্বামী রিপন মিয়া ও স্ত্রী হালিমা খাতুন ঘর থেকে বাহিরে এসে চিৎকার করছে। তাদের শরীরে আগুন অবস্থায়।

প্রতিবেশীরা স্বামী , স্ত্রীর শরীরের আগুন ও ঘরে আগুন নিভিয়ে পত্নীতলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য নিয়ে আসে। অবস্থার অবনতি হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক স্বামী- স্ত্রী উভয় কে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজশাহী মেডিকেলে রেফার্ড করেন। চিকিৎসাধীন অবস্থায় স্ত্রী হালিমা খাতুন বৃহস্পতিবার বেলা ১১ টায় মৃত্যু বরণ করেন।

সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, এই অঙ্গিকান্ডকে প্রতিবেশীরা প্রথমত জানালা দিয়ে আগুন লাগিয়ে দেবার কথা বললেও বর্তমানে বলছেন স্বামী স্ত্রী উভয়ের বিবাদের ফলে এই ঘটনা ঘটতে পারে। কেননা জানালা দিয়ে ঘরের ভিতরে পেট্রোল দেবার পরে আগুন দেবার কোন পরিবেশ নেই।

এ বিষয়ে প্রতিবেশী মো: সামাদুল ইসলাম বলেন, আমি বাহিরে বের হয়ে দেখি ঘরে আগুন। রিপন ও তার স্ত্রী হালিমা কেউ ঘরের ভিতরে ছিলোনা। ঘরের আগুন নিভিয়ে পাশেই স্কুলের ওখানে দেখি অনেক লোকজন। সেখানে গিয়ে তাদের উদ্ধার করে নজিপুর হাসপাতালে নিলে ডাক্তারেরা রাগশাহীতে পাঠায়। তবে তাদের শরীরে কি কারণে আগুন তারা দুজন ছাড়া পৃথিবীর কেউ বলতে পারবেনা। জানালা দিয়ে আগুন ধরার কোন পরিবেশ নেই।

আরও বলেন, জানালা দিয়ে যদি পেট্রোল দেবার পর আগুন দিতো তাহলে জানালার সাথে লাগানো শোবার খাট ( চৌকি ) ও আসবান পত্র ছিলো সেগুলোতে আগুন লাগতো। কারেন্টের লাইন ও ঘরের মধ্যে ব্যাটারী ছিলো, জামা কাপড় ছিলো সেগুলোও অক্ষত আছে। আমার কাছে মনে হচ্ছে স্বামী স্ত্রীর মধ্যে ঝামেলার ফলে স্ত্রী হালিমা নিজের শরীরে আগুন দিলে স্বামী রিপন উদ্ধার করতে গেলে এমন ঘটনা ঘটে।

তিনি আরো বলেন, গতকাল রাতে জানতে পারি তারা রাতের খাবার খেয়ে শুয়েছিল। ঠিক সেই সময় এই ঘটনা ঘটে। আমরা নজিপুর হাসপাতাল থেকে এসে দেখি রান্না করা খাবার ঘরের ভিতর যেমন ভাবে ছিলো ঠিক তেমন ভাবেই আছে।

এ বিষয়ে পত্নীতলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ( ওসি ) শামছুল আলম শাহ জানান, প্রকৃত ঘটনা খুঁজে বের করার জন্য পত্নীতলা থানা পুলিশ কাজ করে যাচ্ছে।

আরপি/ এসএইচ 



আপনার মূল্যবান মতামত দিন:

Top