রাজশাহী শনিবার, ১৩ই এপ্রিল ২০২৪, ৩০শে চৈত্র ১৪৩০

প্রিজাইডিং অফিসারের বিরুদ্ধে ভোটগ্রহণ বন্ধ রাখার অভিযোগ


প্রকাশিত:
৯ জানুয়ারী ২০২২ ০৯:৪০

আপডেট:
১৩ এপ্রিল ২০২৪ ০৫:৪৮

ফাইল ছবি

চাঁপাইনবাবগঞ্জের ভোলাহাট উপজেলার ভোলাহাট ইউনিয়ন পরিষদের ৬ নং ওয়ার্ডের ৭ নং ভোট কেন্দ্রে ভোটারদেরকে ভোট প্রদান বন্ধ রেখে পরিকল্পিত ভাবে বিকেল ৫টার পর কেন্দ্র বাতিলের ঘোষণা ও দায়িত্বে অবহেলার অভিযোগে প্রিজাইডিং অফিসারের বিরুদ্ধে প্রধান নির্বাচন কমিশনার বরাবর প্রতিকার চেয়ে অভিযোগ করেছেন আনারস প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী মো. ইয়াজদানী আলীম আলরাজি জর্জ।

সোমবার প্রধান নির্বাচন কমিশনার বরাবর প্রতিকার চেয়ে অভিযোগ পত্রে আনারস প্রতীকের স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী মো. ইয়াজদানী আলীম আলরাজি জর্জ বলেন, ২৬ ডিসেম্বর রোববার অনুষ্ঠিত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে উপজেলার ভোলাহাট ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের ৭ নং ভোট কেন্দ্র রামেশ্বর পাইলট ইনস্টিটিউশনে দুপুর ১ টা থেকে ভোট গ্রহণের শেষ সময় বিকেল ৪টা পর্যন্ত ১হাজার ৭’শ জন নারী পুরুষ ভোটার ভোট প্রদানের জন্য লাইনে অবস্থান করেন।

কিন্তু ভোট কেন্দ্রে অবস্থানরত ভোটাররা তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে না পেরে প্রিজাইডিং অফিসার মো. শাহরিয়ার আলম শুভকে উদ্দেশ্য করে তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগে বিভিন্ন ধরনের প্রশ্ন করেন। এ সময় প্রিজাইডিং অফিসার ভোটারদের ভোটাধিকার প্রয়োগ থেকে বঞ্চিত রেখে উদ্দেশ্য প্রণোদিত ভাবে ভোট গ্রহণ বন্ধ ঘোষণা করেন।

অভিযোগে আরো বলা হয়, রহস্যজনক কারণে বিকেল ৫টায় লিখিত ভাবে ভোট কেন্দ্র বাতিলের ঘোষণা দেন প্রিজাইডিং অফিসার।

আর তাই এ ভোট কেন্দ্রে পরিকল্পিত ভাবে ভোটারদের ভোটাধিকার প্রয়োগ থেকে বঞ্চিত করা, সরকারি দায়িত্বে অবহেলা, অনিয়মতান্ত্রিক ভাবে কেন্দ্র বাতিল করার কারণে তা প্রতিকারের দাবীতে প্রিজাইডিং অফিসারের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থার দাবী করেন চেয়ারম্যান প্রার্থী মো. ইয়াজদানী আলীম আলরাজি জর্জ।

তিনি নির্বাচন কমিশনের সচিব, রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনার, রাজশাহী আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা, চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা প্রশাসক, চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা, ভোলাহাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তাকে অনুলিপি প্রেরণ করেন।

এ বিষয়ে প্রিজাইডিং অফিসার মো. শাহরিয়ার আলম শুভর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ভোট গ্রহণে কাওকে বাধা দেয়া হয়নি। বরং ওইদিন দুপুর সাড়ে ৩টার দিকে বাইরে ককটেলের শব্দ পেয়ে ভোট গ্রহণ বন্ধ ঘোষণা করা হয়।

তবে কেন্দ্রটিতে আইনশৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনীর দায়িত্বে থাকা এস আই আব্দুল খালেক জানান, এখানে আইনশৃংখলার কোন অবনতি হয়নি।

 

 

 

আরপি/এসআর-১৫



আপনার মূল্যবান মতামত দিন:

Top