রাজশাহী বৃহঃস্পতিবার, ২৩শে মে ২০২৪, ৯ই জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

অপহরণের ১৯ দিনেও খোঁজ মেলে নি স্কুলছাত্রীর


প্রকাশিত:
১০ এপ্রিল ২০২৩ ২৩:৫০

আপডেট:
২৩ মে ২০২৪ ০২:২৬

ছবি: অভিযুক্ত যুবক

চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার নবম শ্রেণীর এক স্কুল ছাত্রীকে অপহরণের ১৯ দিন পরও উদ্ধার করতে পারেনি শিবগঞ্জ থানা পুলিশ। আর এতে উদ্বেগের মধ্যে রয়েছেনে অপহৃত স্কুল ছাত্রীর পরিবার।

জানা গেছে, চলতি বছরের ২২ মার্চ দুপুরের কোন এক সময় শিবগঞ্জ উপজেলার শ্যামপুর চামাবাজার উচ্চ বিদ্যালয় থেকে বাড়ি ফেরার পথে ওই ছাত্রীকে একই উপজেলার বাজিতপুর বাহাদুর মোড়লটোলা এলাকার বখাটে গোলাম নবী (২০) ও তার লোকজন অপহরণ করে নিয়ে যান বলে অভিযোগ ওই ছাত্রীর পরিবারের। এরপর থেকে সে নিখোঁজ রয়েছে।

মামলার এজাহার ও ওই ছাত্রীর পরিবার সূত্রে জানা গেছে, বিগত তিন বছর ধরে বখাটে গোলাম নবী ওই ছাত্রীকে উত্যক্ত করে আসছিল ও প্রেমের প্রস্তাব দিচ্ছিল। এই বিষয়টি ওই ছাত্রী তার পরিবারের সদস্যদের জানায়। এরপর বখাটের পরিবার থেকেও বিয়ের প্রস্তাব দেয়া হয়েছিল যা প্রত্যাখান করে মেয়ের পরিবার।

এরই ফলশ্রুতিতে গত ২২ মার্চ ওই ছাত্রী বিদ্যালয়ে গেলে বাড়ি ফেরার পথে বখাটে গোলাম নবী ও তার লোকজন ওই ছাত্রীকে অপহরণ করে নিয়ে যায়। যা পরে স্থানীয় লোকজনের কাছে মেয়ের পরিবার জানতে পারে। পরে পরিবার ও স্থানীয়রা স্কুলছাত্রীকে উদ্ধারের চেষ্টা করলে তাতে ব্যর্থ হয়। আর তাই ২ এপ্রিল স্কুল ছাত্রীর পিতা বাদী হয়ে শিবগঞ্জ থানায় একটি এজাহার দায়ের করেন।

এ বিষয়ে মামালার বাদী ওই ছাত্রীর পিতা কামাল উদ্দিন বলেন, আমার মেয়ে মাত্র নবম শ্রেণিতে পড়ে। স্কুল যাবার পথে প্রায়ই বখাটে গোলাম নবী আমার মেয়েকে উত্যক্ত করত যা সে তার মাকে এসে বলতো। এক পর্যায়ে মেয়েকে প্রেম ভালোবাসা এমনকি বিয়ের প্রস্তাব দিলে আমরা পারিবারিকভাবে তা প্রত্যাখ্যান করি। আর তাই গোলাম নবী আরো বেপরোয়া হয়ে প্রকাশ্যে আমার মেয়েকে অপহরনের হুমকি দেয়।

কিন্তু গোলাম নবীর সাথে যোগাযোগ করা না গেলেও পরিবারের সাথে যোগাযোগ করা হলে তারা এ বিষয়ে কিছুই জানেন না বলে জানান। তবে তারা যে বিয়ের প্রস্তাব দিয়েছিলেন আর মেয়ের পরিবার যে তা প্রত্যাখ্যান করেছেন তা তারা স্বীকার করেছেন।

এ বিষয়ে শিবগঞ্জ থানার মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই সুজন জানান, ছাত্রীকে উদ্ধারে পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে। আশা করি দ্রুত সময়ের মধ্যে আসামিকে গ্রেফতার করা হবে। 

 

 

আরপি/এসআর-১৮


বিষয়: অপহরণ


আপনার মূল্যবান মতামত দিন:

Top