রাজশাহী শনিবার, ২৪শে ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১২ই ফাল্গুন ১৪৩০


নাটোরে ভ্রাম্যমাণ ভ্যানে ন্যায্যমূল্যে দুধ, ডিম ও মাংস বিক্রি শুরু


প্রকাশিত:
১৩ এপ্রিল ২০২১ ১৪:৪৩

আপডেট:
২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ০৪:৪৪

ছবি: কার্যক্রমের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ শাহরিয়াজ

করোনা সংক্রমণ পরিস্থিতিতে জনসাধারণের প্রাণিজ পুষ্টি নিশ্চিত করতে নাটোরে ভ্রাম্যমাণ পিকআপ ভ্যানে ন্যায্যমূল্যে দুধ, ডিম ও মাংস বিক্রয় কার্যক্রম শুরু করেছে জেলা প্রাণিসম্পদ বিভাগ। আজ সোমবার সকাল সাড়ে নয়টায় মাদ্রাসা মোড় এলাকায় কার্যক্রমের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ শাহরিয়াজ।

কার্যক্রমের উদ্বোধন করে জেলা প্রশাসক মহাম্মদ শাহরিয়াজ বলেন, করোনা সংক্রমন পরিস্থিতিতে নিজেকে বাঁচাতে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করা প্রয়োজন। প্রতিদিন প্রাণিজ খাদ্য গ্রহণ করে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করা সম্ভব। পাশাপাশি, এই কার্যক্রমের মধ্য দিয়ে জেলার খামারীবৃন্দ তাদের উৎপাদিত দুধ, ডিম ও মাংসের ন্যায্যমূল্য পাবেন। অর্থাৎ জীবন ও জীবিকা উভয় স্বার্থই সমুন্নত থাকছে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ গোলাম মোস্তফা ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মীর আসাদুজ্জামান এবং উপস্থিত ছিলেন নাটোর সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম ও উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ সেলিম উদ্দিন।

উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ সেলিম উদ্দিন জানান, প্রতিদিন সকাল নয়টা থেকে শহরের গুরুত্বপূর্ণ স্থানগুলোতে পর্যায়ক্রমে ভ্রাম্যমাণ পিকআপ ভ্যানে ৫০০ লিটার দুধ, দুই হাজার পিস ডিম ও ২৫০ কেজি মুরগীর মাংস বিক্রয় করা হবে। ক্রেতা স্বার্থ বিবেচনা করে বাজারমূল্য অপেক্ষা অল্প দামে এসব পণ্য বিক্রয় করা হবে। প্রাণিসম্পদ ও ডেইরী উন্নয়ন প্রকল্পের সহযোগিতায় জেলা প্রাণিসম্পদ দপ্তর এই কার্যক্রম পরিচালনা করছে এবং সহযোগি হিসেবে কাজ করছে বাংলাদেশ ডেইরী ফার্মার্স এসোসিয়েশন ও বাংলাদেশ পোল্ট্রি ফার্মার্স এসোসিয়েশন।

জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ গোলাম মোস্তফা বলেন, এই কার্যক্রমে ক্রেতারা তাদের কাছাকাছি অবস্থানে থেকে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে বাজারমূল্য অপেক্ষা কম দামে তাদের কাংখিত পণ্য সংগ্রহ করতে পারবেন। পাশাপাশি, জেলার খামারীবৃন্দ করোনা সংক্রমণ পরিস্থিতিতে খুব সহজেই তাদের উৎপাদিত পণ্য বাজারজাত করতে সক্ষম হবেন। এরফলে মধ্যস্বত্বভোগীদের দৌরাত্বও কমবে। জেলার বড়াইগ্রাম, বাগাতিপাড়া ও সিংড়া উপজেলায় এই কার্যক্রম শুরু হতে যাচ্ছে এবং অন্যান্য উপজেলাতেও কার্যক্রম শুরুর প্রক্রিয়া চলছে বলে জানান জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা।

আরপি/ এসআই



আপনার মূল্যবান মতামত দিন:

Top