রাজশাহী সোমবার, ২২শে জুলাই ২০২৪, ৮ই শ্রাবণ ১৪৩১


চাঁপাইনবাবগঞ্জে

রাজশাহী কলেজের সাবেক শিক্ষার্থীকে পিটিয়ে হত্যা


প্রকাশিত:
২৭ অক্টোবর ২০১৯ ০৪:৩৭

আপডেট:
২৭ অক্টোবর ২০১৯ ০৮:২৮

ছবি: নিহত আব্দুর রাজ্জাক

চাঁপাইনবাবগঞ্জে রাজশাহী কলেজ উদ্ভিদ বিজ্ঞান বিভাগের প্রাক্তন শিক্ষার্থী আব্দুর রাজ্জাককে (২২) তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। নিহত আব্দুর রাজ্জাক ঐ জেলার শিবগঞ্জ বিনোদপুর ইউনিয়নের একবারপুর বিশ্বাসপাড়া বাসিন্দা আব্দুল সালামের ছেলে।

এ ঘটনায় একই এলাকার মফিজ উদ্দিনের ছেলে সুজন ও পলাশের স্ত্রী ডালিয়াকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

শনিবার ভোরে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাজ্জাকের মৃত্যু হয়। এর আগে শুক্রবার সকালে উপজেলার বিনোদপুর ইউনিয়নের একবরপুর গ্রামে আব্দুর রাজ্জাককে পিটিয়ে আহত করে একই এলাকার মফিজ ও তার পরিবার।

নিহত রাজ্জাক শিবগঞ্জ উপজেলার বিনোদপুর ইউনিয়নের একবরপুর গ্রামে আব্দুস সালামের ছেলে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার  সকালে বাড়ির সামনে রাস্তার ওপরে বৃষ্টির পানি জমে থাকলে তা নিষ্কাশন করতে যান আব্দুর রাজ্জাক ও তার বাবা আব্দুস সালাম। এসময় বাড়ির সামনে দিয়ে পানি নিষ্কাশন করতে বাধা দেয় মফিজ উদ্দিনের ছেলে ও ছেলের বউ। একপর্যায়ে কথা কাটাকাটি হলে মফিজ উদ্দিনের ছেলে বকুল, মামুন, পলাশ, সুজন , বকুল এর স্ত্রী  রোজিনা বেগম, মামুনের স্ত্রী তানজু বেগম ও পলাশের স্ত্রী ডালিয়া বেগম লাঠি দিয়ে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে রাজ্জাক ও তার বাবাকে।

স্থানীয়দের সহায়তার আহতদের পরিবারের সদস্যরা তাদের উদ্ধার করে উদ্ধার করে শিবগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়া হয়। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন। পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শনিবার ভোরে রাজ্জাকের মৃত্যু হয়।

এদিকে এ ঘটনায় শুক্রবার রাতেই নিহত রাজ্জাকের চাচা সেতাউর রহমান বাদী হয়ে মফিজউদ্দিনসহ তার পরিবারের ৭ জনের নাম উল্লেখ করে শিবগঞ্জ থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়।

পুলিশ শনিবার সকালে মফিজ উদ্দিনের ছেলে সুজন ও পলাশের স্ত্রী ডালিয়া বেগমকে গ্রেফতার করে।

শিবগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শামসুল আলম শাহ গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

 

আরপি/এমএএইচ

 

 



আপনার মূল্যবান মতামত দিন:

Top