রাজশাহী বৃহঃস্পতিবার, ২৩শে মে ২০২৪, ৯ই জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১


রাজশাহী কলেজের হোস্টেল ভাড়া মওকুফ করে দিলেন অধ্যক্ষ


প্রকাশিত:
৪ মে ২০২০ ০৩:৪৭

আপডেট:
৪ মে ২০২০ ১৯:১৮

রাজশাহী কলেজের নবনির্মিত ছাত্রাবাস এবং ইনসেটে অধ্যক্ষ প্রফেসর মহা. হবিবুর রহমান

করোনা পরিস্থিতিতে সংকটকালে দেশের ঐতিহ্যবাহী ও উত্তরবঙ্গের অন্যতম বিদ্যাপীঠ পরপর চার বার দেশ সেরা হওয়া রাজশাহী কলেজ হোস্টেলে থাকা শিক্ষার্থীদের ভাড়া মওকুফ করে দিয়েছেন।

করোনার পর পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত এবং হোস্টেলে শিক্ষার্থীরা না ফেরা পর্যন্ত কাউকে ভাড়া দেয়া লাগবেনা বলে জানিয়েছেন রাজশাহী কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মহা. হবিবুর রহমান। আজ রোববার সন্ধ্যা সন্ধ্যা সাড়ে ৭ টার দিকে রাজশাহী কলেজের অধ্যক্ষ গণমাধ্যমকে বলেন, করোনা পরিস্থিতিতে শিক্ষার্থীরা যেহেতু কলেজ হোস্টেলে থাকছে না। তারা এখন নিজ নিজ বাড়িতে অবস্থান করছে। এই কারণে হোস্টেলের কোন বিদ্যুৎ খরচ হচ্ছে না।

এছাড়াও এই পরিস্থিতিতে মানুষের অবস্থা আর্থিকভাবে খারাপ রয়েছে। তাই সবার কথা চিন্তা করে রাজশাহী কলেজের হোস্টেলে ছাত্রী নিবাসের ভাড়া করোনা সংকটের পর পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত মওকুফ করে দেয়া হবে। অনুপস্থিতকালীন কোন শিক্ষার্থীকে ভাড়া দেয়া লাগবেনা বা পরেও কারো কাছ থেকে ভাড়া নেওয়া হবে না। কলেজ হোস্টেল ছাত্রীনিবাসের কাউকেই অনুপস্থিত কালীন ভাড়া দিতে হবে না।

তবে ছাত্রীনিবাসে কর্মচারী বিল পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে শিক্ষার্থীদের দিতে হবে। এছাড়া কিছু দেয়া লাগবেনা। রাজশাহীতে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে পড়াশোনা করা শিক্ষার্থীরা ম্যাচ ভাড়া মওকুফের দাবি নামক যে গ্রুপ খুলেছেন সেই গ্রুপে ভাড়া মওকুফের দাবি কতটা যৌক্তিক তা জানতে চাইলে তিনি বলেন, করণা সংকটের মধ্যে শিক্ষার্থীরা যে মিস ভাড়া মওকুফের দাবি তুলেছেন তা যৌক্তিক।

কারণ এ সময় অনেক পরিবার আর্থিকভাবে সমস্যায় রয়েছে। যেহেতু তারা মেসে থাকছে না তাই তাদের দাবি টা যৌক্তিক রয়েছে। করোনা সংকটকালে শিক্ষার্থীদের মেসে ভাড়া মালিকদের মওকুফ করে দেয়া প্রয়োজন। কারণ তাদের অভিভাবকরা এই সময়ে সমস্যার মধ্যে রয়েছে।

এ বিষয় নিয়ে আমি রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মাননীয় মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন ও রাজশাহী জেলা প্রশাসক হামিদুল হক স্যার কে চিঠি দিব। যাতে সবাই মিলে বসে একটি ভাল সমাধান হয়। রাজশাহীর শিক্ষার্থীদের মেস ভাড়া মওকুফের দাবি নামক গ্রুপের এডমিন রাজু আহমেদ আপন বলেন, করোনা সংকটের মধ্যে শিক্ষার্থীদে সবার কথা মাথায় রেখেই এই গ্রুপটি করা হয়েছে।

যাতে আমরা সবাই মিলে যোক্তিক দাবি তুলে ধরতে পারি ও এর একটি সুষ্ঠু সমাধান হয়। মাত্র কয়েকদিনের ব্যবধানে এই পেজটির পরিধি অনেক বেড়েছে। এখন এই পেজের ১৪ হাজারের ওপরে সদস্য রয়েছে।

আমি সবাইকে নিজ নিজ অবস্থান থেকে ম্যাচ ভাড়া মওকুফের দাবি নিয়ে অনড় থাকার বিষয় অনুরোধ করছি।এছাড়া মেস মালিকদের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি আপনারা এই দুঃসময়ে আপনাদের মেসের বর্ডারদের পাশে দাঁড়ান। যাতে মেসের শিক্ষার্থী ও আপনাদের কারো কষ্ট না হয়।

আজ রোববার বিকেলে মতিহার থানা মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ইসমাইল হোসেন বলেন, আমাদের সমিতির আওতায় যে ম্যাচ গুলো রয়েছে আমরা বসে কিছু করণীয় ঠিক করেছি। তবে পুরোপুরি করণীয় ঠিক করতে রাসিকের মেয়র মহোদয়ের সাথে দেখা করব। এরপর সিদ্ধান্ত নেয়া হবে আমরা কতটুকু ছাড় দিতে পারব আর কতটুকু পারবো না।

 

 

আরপি/ এমবি



আপনার মূল্যবান মতামত দিন:

Top