রাজশাহী রবিবার, ২০শে সেপ্টেম্বর ২০২০, ৬ই আশ্বিন ১৪২৭


যুক্তরাষ্ট্রের বাজেট ঘাটতি ৩ লাখ কোটি ডলার


প্রকাশিত:
১৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ ১৩:০৩

আপডেট:
২০ সেপ্টেম্বর ২০২০ ২২:৩৫

ছবি: সংগৃহিত
বাজেট ঘাটতিতে নতুন রেকর্ড গড়েছে যুক্তরাষ্ট্র। করোনাভাইরাসের তাণ্ডব মোকাবেলায় দেশটির নেয়া বিভিন্ন আর্থিক সহায়তা ও প্রণোদনা প্রকল্প এবং বিভিন্ন কর্মসূচির কারণে বিশ্বের শীর্ষ অর্থনীতির এই দেশটিতে এরই মধ্যে বাজেট ঘাটতির পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৩ লাখ কোটি (৩ ট্রিলিয়ন) ডলারে।

এদিকে করোনা মহামারী ও আরোপিত নানা বিধিনিষেধের ফলে গরিব দেশগুলোতে ব্যাপকভাবে আয় কমেছে। নজিরবিহীন দারিদ্র্যের মধ্যে মানবেতর জীবনযাপন করছে লাখ লাখ অধিবাসী। খবর বিবিসির।

করোনাভাইরাসের কারণে একদিকে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসা-বাণিজ্য। অন্যদিকে সরকারের করোনার ত্রাণ তহবিলে বিপুল অর্থ খরচে বিপাকে যুক্তরাষ্ট্রের অর্থনীতি। মার্কিন অর্থ মন্ত্রণালয়ের এক রিপোর্টে বলা হয়েছে, চলতি অর্থবছরের প্রথম ১১ মাসে যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল সরকার খরচ করেছে ৬ লাখ কোটি (৬ ট্রিলিয়ন) ডলারেরও বেশি। এর মধ্যে শুধু করোনা নিয়ন্ত্রণ কর্মসূচিতেই ব্যয় হয়েছে দুই লাখ কোটি (দুই ট্রিলিয়ন) ডলার। এই ব্যয় কর থেকে অর্জিত রাজস্বকে (৩ ট্রিলিয়ন ডলার) ছাড়িয়ে গেছে।

২০০৯ সালে পুরো বছরে যে রেকর্ড পরিমাণ ঘাটতিতে পড়েছিল মার্কিন অর্থনীতি এবারের ঘাটতি তার দ্বিগুণেরও বেশি। ওই সময় ২০০৮ সালের মহামন্দার ধাক্কায় আবাসন খাতের টলায়মান অবস্থা সামলাতে হিমশিম খাচ্ছিল ওয়াশিংটন।

করোনা মহামারী শুরুর আগে চলতি অর্থবছরে যুক্তরাষ্ট্রের বাজেট ঘাটতি ১ লাখ কোটি (১ ট্রিলিয়ন) ডলার হবে বলে মনে করা হয়েছিল। ১ লাখ কোটি ডলারও মার্কিন অর্থনীতির ইতিহাসে বেশ বড় ঘাটতি।

কিন্তু করোনায় অর্থনৈতিক প্রভাব ন্যূনতম করতে আগাম সতর্কতা হিসেবে সরকার ব্যাপক খরচ করতে শুরু করায় ঘাটতি লাফিয়ে লাফিয়ে বেড়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেসনাল বাজেট অফিস চলতি মাসে ভবিষ্যদ্বাণী করেছে, যুক্তরাষ্ট্র এবার বাৎসরিক ৩.৩ ট্রিলিয়ন ডলার ঘাটতির মুখে পড়তে যাচ্ছে। গত বছরের তুলনায় এই ঘাটতি তিন গুণ।

যেখানে যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল সরকারের অর্থবছর শেষ হয় সেপ্টেম্বরে। সরকারি সংস্থাটি আরও বলছে, চলতি বছর যুক্তরাষ্ট্র সরকারের ঋণ ২৬ ট্রিলিয়ন ডলার ছাড়িয়ে যেতে পারে।

করোনা ধনী-গরিব নির্বিশেষে বিশ্বের প্রতিটি দেশের অর্থনীতির ওপর নেতিবাচক প্রভাব ফেলেছে। ধনী দেশগুলোতে ইতোমধ্যে আয় কমেছে ৪৫ শতাংশ। আর গরিব দেশগুলোতে কমেছে ৬৯ শতাংশ।

সম্প্রতি ২৭ দেশের ৩০ হাজার মানুষের জীবনযাত্রার ওপর বিবিসি ওয়ার্ল্ড সার্ভিসের চালানো এক জরিপ মতে, অপেক্ষাকৃত গরিব দেশগুলোর অবস্থা সবচেয়ে বেশি ভয়াবহ।

আরপি/আর




আপনার মূল্যবান মতামত দিন:

Top