রাজশাহী রবিবার, ২৬শে জুন ২০২২, ১৩ই আষাঢ় ১৪২৯


মধ্যপ্রাচ্যজুড়ে চলছে ভারত বয়কটের ডাক


প্রকাশিত:
৭ জুন ২০২২ ০৮:৫০

আপডেট:
২৬ জুন ২০২২ ০৭:৩২

ছবি: সংগৃহীত

ভারতের ক্ষমতাসীন দল বিজেপির দু'জন নেতা মহানবী মোহাম্মদ সম্পর্কে বিতর্কিত মন্তব্য করার পর মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে এর বিরুদ্ধে যেভাবে ক্ষোভ বাড়ছে, তার কারণে ভারত সরকার পরিস্থিতি শান্ত করতে কিছু ব্যবস্থা নিতে বাধ্য হয়েছে। মধ্যপ্রাচ্যজুড়ে চলছে ভারত বয়কটের ডাক। কুয়েতের দোকানগুলো এরই মধ্যে ভারতীয় পণ্য সরিয়ে ফেলেছে।

নূপুর শর্মার মন্তব্য ইসলামের পরিপন্থী বলে দাবি করেছে কুয়েতের মার্কেট কর্তৃপক্ষ। এর জেরে সৌদি আরব, কাতার, কুয়েতের মতো উপসাগরীয় দেশসহ ইরানে ভারতীয় রাষ্ট্রদূতকে ডেকে পাঠানো হয়।

কুয়েত, ইরান, সৌদি আরবের মতো দেশগুলি ইতোমধ্যে নয়াদিল্লির উপর চাপ সৃষ্টি করেছে। ভারতকে নিঃশর্ত ক্ষমা চাওয়ার আর্জি জানিয়েছে তারা।

ভারতের হিন্দু জাতীয়তাবাদী দল বিজেপির মুখপাত্র নূপুর শর্মা গত মাসে এক টেলিভিশন বিতর্কে এই মন্তব্য করেছিলেন। আর দলের দিল্লি শাখার মিডিয়া ইউনিটের প্রধান নভিন জিন্দাল এ বিষয়ে টুইটারে একটি পোস্ট দিয়েছিলেন।

তাদের মন্তব্য, বিশেষ করে নূপুর শর্মার কথা ভারতের সংখ্যালঘু মুসলিম সম্প্রদায়কে বেশ ক্ষুব্ধ করে। এর বিরুদ্ধে বিভিন্ন জায়গায় বিচ্ছিন্নভাবে কিছু প্রতিবাদ বিক্ষোভও হয়েছে।

নূপুর শর্মা ইলামের নবী সম্পর্কে যে মন্তব্য করেন, তা বেশ আক্রমণাত্মক এবং অবমাননাকর, তাই ঢাকামেইল সেই মন্তব্য উল্লেখ করছে না।

বিজেপির এই দুই নেতা এরই মধ্যে প্রকাশ্যে ক্ষমা চেয়েছেন। অন্যদিকে বিজেপি মিজ শর্মাকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করেছে, আর জিন্দালকে দল থেকেই বহিষ্কার করেছে।

এক বিবৃতিতে দলটি বলেছে, 'বিজেপি কঠোরভাবে যে কোন ধর্মের যে কোন ধর্মীয় ব্যক্তিত্বকে অপমানের নিন্দা করে। বিজেপি কোন সম্প্রদায় বা ধর্মকে অপমান করে, বা হেয় করে- এমন যে কোন আদর্শেরও বিরুদ্ধে । বিজেপি এধরণের মানুষ বা দর্শনকে সমর্থনও করে না।'

পণ্য বয়কটের ঘটনাকে কেন্দ্র করে উগ্বেগ বেড়েছে নয়াদিল্লির। পরিস্থিতি সামল দিতে সোমবার তড়িঘড়ি ভারতীয় পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে সাংবাদিক সম্মলেন করা হয়। বিতর্কিত মন্তব্যের জন্য ইসলামিক দেশগুলোর মন্তব্যকে অযৌক্তিক বলে দাবি করেছেন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র অরিন্দম বাগচি। বিশ্বের সব প্রান্তের, সব ধর্মের প্রতি ভারতের সম্মান রয়েছে বলে জানান তিনি। সেই সঙ্গে বিতর্কিত মন্তব্য ওই দুই নেত্রীর একান্ত ব্যক্তিগত মত বলে জানিয়েছেন তিনি।

অন্যদিকে, সৌদি আরব সহ একাধিক ইসলামিক রাষ্ট্রের সঙ্গে ভারতের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক এখন বেশ ভালো। তবে, বিতর্কিত মন্তব্যের জেরে সেই সম্পর্কে প্রভাব ফেলতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। ভারত কূটনৈতিক স্তরের আলোচনার মাধ্যমে সমস্যা সমাধানের চেষ্টা চালাচ্ছে বলে ইঙ্গিত পাওয়া গেছে।

 

 

আরপি/এসআর-০৩



আপনার মূল্যবান মতামত দিন:

Top