রাজশাহী সোমবার, ৬ই ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২৫শে মাঘ ১৪২৯


‘দুশ্চিন্তার কারণ নেই, মমতাময়ী মা শেখ হাসিনা সাথে আছেন’


প্রকাশিত:
২৪ জানুয়ারী ২০২৩ ২০:০০

আপডেট:
৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ ২২:০৭

ছবি: প্রতিনিধি সভা

দুশ্চিন্তার কোনো কারণ নেই আমাদের সাথে মমতাময়ী মা জননেত্রী শেখ হাসিনা আছেন। আরও আছেন তার পুত্র সজিব ওয়াজেদ জয়। তারই দিক-নির্দেশনায় আমরা স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ছি বলে মন্তব্য করেছেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) ভিসি অধ্যাপক ড. গোলাম সাব্বির সাত্তার তাপু।

মঙ্গলবার (২৪ জানুয়ারি) দুপুরে রাজশাহী শহীদ এএইচএম কামারুজ্জামান অডিটোরিয়ামে এক প্রতিনিধি সভায় ভিসি এ মন্তব্য করেন।

আগামী ২৯ জানুয়ারি রাজশাহীতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জনসভা সফল করতে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ এই বিভাগীয় প্রতিনিধি সভার আয়োজন করে।

বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি সাদ্দাম হোসেনের সভাপতিত্বে প্রতিনিধি সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও রাজশাহী সিটি করপোরেশনের (রাসিক) মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন।

প্রতিনিধি সভায় প্রধান আলোচকের বক্তব্যে অধ্যাপক ড. গোলাম সাব্বির সাত্তার তাপু বলেন, বঙ্গবন্ধুর সব আকাঙ্ক্ষাকে বাস্তবায়ন করে জননেত্রী শেখ হাসিনা এগিয়ে যাচ্ছে। আমরা এসডিজি অর্জন করেছি, এমডিজি অর্জন করেছি, ২০৪১ এ আমরা উন্নত বিশ্বে যাবো। এর রূপকার সম্পূর্ণই বঙ্গবন্ধু কন্যা। বাংলাদেশের ইতিহাস পিতা-কন্যার যুগলবন্দী এক ইতিহাস। যে ইতিহাসের সাথে জড়িত আছে শুধু উন্নয়ন, উন্নয়ন আর উন্নয়ন।

বঙ্গবন্ধুর উক্তি উচ্চারণ করে গোলাম সাব্বির সাত্তার বলেন, ১৯৭৩ সালে বঙ্গবন্ধু বলেছিলেন, ‘বাবারা তোমাদেরকে শেখ মুজিবকে বেটে (ভাগ করে) খাওয়ালেও কিছু হবে না। তোমরা নিজেদেরকে তৈরি করো। তোমরা সোনার মানুষ হও। সোনার বাংলা গড়ার জন্য সোনার মানুষ প্রয়োজন।’

১৯৪৮ সালের ছাত্রলীগ আর এখনকার ছাত্রলীগ কিন্তু এক নয়। সময়ের প্রয়োজনে, সময়ের তাগিদে বঙ্গবন্ধুকে সহযোগিতা করে গেছে ছাত্রলীগ। আমরা ছাত্রলীগের দীর্ঘ ইতিহাস জানি। ১৯৫২ থেকে ৭১ পর্যন্ত যতগুলো ইতিহাস তার প্রত্যেকটার সাথে ছাত্রলীগ জড়িত বলে জানান তিনি।

প্রধানমন্ত্রীর প্রসঙ্গ টেনে রাবি ভিসি বলেন, ২০১৮ সালের নির্বাচনের আগে উনি যে কথা দিয়েছিলেন ডিজিটাল বাংলাদেশের, ডিজিটাল বাংলাদেশ আমরা শনাক্ত করেছি। এখন কি স্মার্ট বাংলাদেশ? এখানে ছাত্রলীগের সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব বলে মনে করি।

আমি বিশ্বাস করি, যারা নেতিবাচক কাজ করে তারা ছাত্রলীগ না, তারা তথাকথিত ছাত্রলীগ। এই তথাকথিত ছাত্রলীগের জন্য বঙ্গবন্ধুর ছাত্রলীগ যেন কলুষিত না হয়, শেখ হাসিনার ছাত্রলীগ যেন কলুষিত না হয়, সাদ্দাম-ইনানের ছাত্রলীগ যেন কলুষিত না হয়। ছাত্রলীগের ইতিহাসই হলো ত্যাগের ইতিহাস। বঙ্গবন্ধু আজীবন ত্যাগ করে গেছেন। বঙ্গবন্ধু সাইকেল চালিয়ে, চোঙা ফুঁকিয়ে মিটিং করেছেন বলেও উল্লেখ করেন ভিসি।

অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ ওয়ালী আসিফ ইনান। সভায় ছাত্রলীগের রাজশাহী বিভাগের জেলা, মহানগর, বিশ্ববিদ্যালয়সহ বিভিন্ন ইউনিটের নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।

 

 

আরপি/এসআর-০৫



আপনার মূল্যবান মতামত দিন:

Top