রাজশাহী শুক্রবার, ১লা ডিসেম্বর ২০২৩, ১৮ই অগ্রহায়ণ ১৪৩০


‘ব্যাংকে টাকা নেই’ এটা গুজব, কেউ কান দেবেন না: প্রধানমন্ত্রী


প্রকাশিত:
৫ ডিসেম্বর ২০২২ ০৬:২৮

আপডেট:
১ ডিসেম্বর ২০২৩ ১৬:২৯

ফাইল ছবি

‘ব্যাংকে টাকা নেই’-এমন গুজব ছড়ানো হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। উদ্দেশ্যমূলকভাবে বিরোধী দল মানুষকে বিভ্রান্ত করতে এই গুজব ছড়াচ্ছে অভিযোগ করে তিনি বলেছেন, ব্যাংকে গিয়ে টাকা পায়নি এমন কেউ কি আছে। এটা নিছক গুজব, এই গুজবে কান না দিতে তিনি দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

রোববার (৪ ডিসেম্বর) বিকেলে চট্টগ্রামের পলোগ্রাউন্ড মাঠে আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় প্রধান অতিথির ভাষণে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘একটা গুজব ছড়ানো হচ্ছে, ব্যাংকে টাকা নেই। যারা টাকা তুলতে গেছে সবাই তো টাকা তুলতে পেরেছে। কেউ কি ফেরত এসেছে। ব্যাংকে টাকা রাখবেন না, কোথায় রাখবেন। ঘরে এনে রাখলে সেই টাকা তো চোরেও নিয়ে যেতে পারে।’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘গুজব রটিয়ে মানুষকে বিভ্রান্ত করা হচ্ছে। মানুষের সর্বনাশ করা এটাই বিএনপি-জামায়াত-শিবিরের কাজ। নাকি চোরের সাথে তাদের কোনো সখ্য আছে। ওরা আসলে নিজেরাই মানুষের টাকা মেরে খায়। সেই কাজই করে যাচ্ছে।’

এ সময় সরকারপ্রধান আক্ষেপ করে বলেন, আমরা দেশকে ডিজিটাল করলাম, আর ডিজিটাল প্লাটফর্ম ব্যবহার করে আমাদের বিরুদ্ধে গুজব ছড়ানো হচ্ছে।

এ সময় তিনি রিজার্ভ নিয়েও কথা বলেন। জানান, দেশে ৩৪ বিলিয়নের বেশি রিজার্ভ আছে। এটা নিয়ে দুশ্চিন্তার কোনো কারণ নেই। এছাড়া দেশে খাদ্যের কোনো অভাব নেই বলেও জানান সরকারপ্রধান।

দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানিয়ে আওয়ামী লীগ সভাপতি বলেন, ‘দয়া করে কেউ গুজবে কান দেবেন না। চিলে কান নিয়ে গেছে শুনেই দৌড়াবেন না, কান আছে কি না সেটা দেখবেন। ওরা মিথ্যা কথা বলে, এটা ওদের অভ্যাস। আগে গুজবটা সঠিক কি না সেটা দেখবেন। এটা শুধু চট্টগ্রামবাসীর জন্য নয়, সারাদেশের মানুষের জন্য আমার আহ্বান।’

বিএনপি-জামায়াতের সমালোচনা করে শেখ হাসিনা বলেন, ‘ওরা মানুষের ক্ষতি করার অনেক চেষ্টা করেছে। আমরা তা দিইনি। ওরা ধ্বংস করে, আমরা সৃষ্টি করি। ওরা ক্ষতি করে, আমরা মঙ্গল করি। এটাই আওয়ামী লীগ ও বিএনপির পার্থক্য। আমরা শান্তিতে বিশ্বাস করি, উন্নতিতে বিশ্বাস করি। গণতান্ত্রিক ধারায় আছে বলেই বাংলাদেশ উন্নতি করে।’ ২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশ উন্নত বিশ্বের কাতারে যুক্ত হবে বলেও জানান সরকারপ্রধান।

বিএনপির সমালোচনা করে তিনি বলেন ‘আমরা উন্নয়ন করি, আর বিএনপি মানুষ খুন করে। এই চট্টগ্রামে বিএনপি বারবার বোমা ও গ্রেনেড মেরেছে। বিএনপি মানুষের শান্তি চায় না। খালেদা জিয়ারা পারে মানুষ হত্যা করতে। আওয়ামী লীগ শান্তিতে বিশ্বাস করে। তাই আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এলে জনগণ শান্তিতে থাকে। বিএনপির দুইটা গুণ আছে-ভোট চুরি আর মানুষ খুন।’

এ সময় সবাইকে আবারও মিতব্যয়ী ও সাশ্রয়ী হওয়ার আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী। বলেন, ‘সবাইকে সাশ্রয়ী হতে হবে। আপনারা হয়ত জানেন না, ইউরোপের লোকজন কী সংকটে আছে। তারা ইচ্ছে মতো গ্যাস, বিদ্যুৎ, পানি ব্যবহার করতে পারে না। বাংলাদেশ সেই অবস্থায় যাবে না। দেশের মানুষের সব রকমের সহযোগিতা আমরা অব্যাহত রাখবো। তবে বিদ্যুৎ-জ্বালানি ব্যবহারে সবাইকে সাশ্রয়ী হতে হবে। এক ইঞ্চি জমি খালি ফেলে রাখবেন না। আমাদের যেন পরমুখাপেক্ষী হতে না হয় সেই চেষ্টা সবাইকে করতে হবে।’

আওয়ামী লীগ আয়োজিত বিশাল সমাবেশে খুনি, গ্রেনেড হামলাকারীদের হাত থেকে দেশের মানুষকে রক্ষা করতে সবার সহযোগিতা চান দলের সভাপতি। আগামী নির্বাচনে আওয়ামী লীগকে আবার ভোট দেওয়ার প্রতিশ্রুতিও নেন টানা তিনবারের প্রধানমন্ত্রী।

 

 

আরপি/এসআর



আপনার মূল্যবান মতামত দিন:

Top