রাজশাহী শনিবার, ২রা মার্চ ২০২৪, ২০শে ফাল্গুন ১৪৩০


আ’লীগ সরকার শিক্ষা নিতে জানে না: ফখরুল


প্রকাশিত:
১১ মে ২০২২ ০৩:২৪

আপডেট:
২ মার্চ ২০২৪ ১৩:১১

ছবি: সংবাদ সম্মেলন

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, আওয়ামী লীগ সরকার শিক্ষা নিতে জানে না, যদি জানত তাহলে এই দশ বছরে শিক্ষা নিতে পারত। কোনো শিক্ষা নেয়নি। শ্রীলংকার চেয়েও এদের অবস্থা খারাপ হবে।

তিনি বলেন, শ্রীলঙ্কাতে নদীতে ঝাঁপিয়ে পড়েছে সব আর এরা (আওয়ামী লীগ) বঙ্গোপসাগরে ঝাঁপিয়ে পড়বে।

মঙ্গলবার (১০ মে) নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক যৌথসভা শেষে সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

নিজেদের অস্তিত্ব রক্ষায় বিএনপি নির্বাচনে আসবে বলে ওবায়দুল কাদেরের দেওয়া বক্তব্যের তীব্র সমালোচনা করে বিএনপি মহাসচিব বলেন ওবায়দুল কাদের সাহেবকে আগে বিএনপিতে যোগ দিয়ে এই দলের সিদ্ধান্ত নেওয়ার দায়িত্ব নিতে হবে।

তিনি বলেন, আমরা অত্যন্ত স্পষ্টভাবে বলেছি, বর্তমান অবৈধ শেখ হাসিনা সরকারের অধীনে বিএনপি কোনো নির্বাচনে যাবে না। এর মধ্যে এতোটুকু ফাঁকফোকর নেই। এই সরকারকে যেতে হবে ক্ষমতা হস্তান্তর করতে হবে নিরপেক্ষ সরকারের হাতে এবং নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশন গঠনের পরেই একটি অবাধ সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের সুযোগ সৃষ্টি হবে।

আগামী সংসদ নির্বাচনে ৩০০ আসনে ইভিএমের সক্ষমতা নেই নির্বাচনে নির্বাচন কমিশনের দেওয়া মন্তব্যের বিষয়ে মির্জা ফখরুল বলেন, নির্বাচন কমিশন যা বলার বলে দিয়েছেন এখানে আমাদের বলার তেমন কিছু আছে বলে মনে হয় না। এই সরকার যে নির্বাচন প্রক্রিয়ার সঙ্গে সরাসরি জড়িত থাকে এবং নির্বাচন কে নিয়ন্ত্রণ করে এর প্রমাণ প্রধানমন্ত্রী কি করে বলেন- যে ৩০০ আসনেই ইভিএমের মাধ্যমে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। অথচ এটা সম্পূর্ণ নির্বাচন কমিশনের বিষয়।

‘এই সরকার সচেতনভাবে অত্যন্ত পরিকল্পিতভাবে এই দেশের নির্বাচন ব্যবস্থা, গণতন্ত্রকে ধ্বংস করছে,’ বলেন তিনি।

বিএনপি’র সিনিয়র নেতাদের পক্ষ থেকে বলা হয়েছিল ঈদের পরে আন্দোলন কাকে বলে দেখিয়ে দেব এই প্রশ্নের জবাবে মির্জা ফখরুল বলেন, আমাদের সবকিছুই আন্দোলনের অংশ আমরা যা কিছু করছি তাই আন্দোলন। আন্দোলন বলতে আপনারা কি বুঝেন তা জানি না। আমরা যারা আন্দোলন করি তারা বুঝি আন্দোলন মানেই জনগণকে সম্পৃক্ত করা। সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের বিরুদ্ধে কর্মসূচি দিয়েছি এটাও আন্দোলনের কর্মসূচি, জিয়াউর রহমানের শাহাদাতবার্ষিকী উপলক্ষে যে কর্মসূচি দিয়েছি সেটাও আন্দোলনের কর্মসূচি। অস্থির হবেন না আপনারা যেটা দেখতে চান সেটা খুব শীঘ্রই দেখতে পাবেন।

সয়াবিন তেলের মূল্য বৃদ্ধি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, এই সরকারের পরিবর্তন হলে দ্রব্যমূল্যসহ সবকিছুই মানুষের ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে আসবে, নিয়ন্ত্রণ হবে।

জিয়াউর রহমানের ৪১তম মৃত্যুবার্ষিকী পালনে দলের সম্পাদক, যুগ্ম মহাসচিব, ঢাকা মহানগরের নেতৃবৃন্দ, অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকদের নিয়ে যৌথসভা করে বিএনপি। নয়াপল্টন কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের সভাপতিত্বে এই সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন- বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, যুগ্ন মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, খায়রুল কবির খোকন, প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী প্রমুখ।

 

 

আরপি/এসআর-১২



আপনার মূল্যবান মতামত দিন:

Top