রাজশাহী শুক্রবার, ৩০শে অক্টোবর ২০২০, ১৫ই কার্তিক ১৪২৭

রাজশাহীতে প্রতিবন্ধীর মেয়েকে ধর্ষণ, ১০ জুতায় রফাদফা!


প্রকাশিত:
১৪ অক্টোবর ২০২০ ২০:৩৮

আপডেট:
৩০ অক্টোবর ২০২০ ০৫:২০

ছবি: সংগৃহীত

রাজশাহীর পবা উপজেলায় এক প্রতিবন্ধী ব্যক্তির স্কুল পড়ুয়া মেয়েকে (১৫) জোরপূর্বক ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। বিষয়টি জানাজানি হলে স্থানীয় প্রভাবশালীরা সালিশে ১০ জুতার বাড়িতে মীমাংসা করার চেষ্টা করেছেন বলেও খবর পাওয়া গেছে। মঙ্গলবার (১৩ অক্টোবর) সন্ধ্যায় উপজেলার হরিয়ান ইউনিয়নের জয়পুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

ভুক্তভোগী কিশোরীর পরিবার জানায়, গত শুক্রবার (৯ অক্টোবর) ওই কিশোরী বাড়ির বাইরে টিউবওয়েলে পানি আনতে গেলে শাহিনুর ইসলাম (২৭) নামে স্থানীয় এক যুবক মেয়েটির ঘরে প্রবেশ করে এক কোণে লুকিয়ে থাকে। মেয়েটি পানি নিয়ে ঘরে ফিরলে শাহিনুর দরজার শিকল লাগিয়ে জোরপূর্বক তাকে ধর্ষণ করে। মেয়েটির চিৎকারে তার ভাই ও আশপাশের লোকজন ছুটে এসে দরজা ভেঙ্গে ঘরে প্রবেশ করেন এবং শাহিনুরকে আপত্তিকর অবস্থায় হাতেনাতে ধরে ফেলেন। এসময় মেয়েটির ভাই শাহিনুরকে চড়-থাপ্পড় মারতেই মোবাইল ফোন ফেলে জানালা ভেঙ্গে পালিয়ে যায়। তবে ঘটনাটি পুলিশকে জানালে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দেয় শাহিনুর।

স্থানীয়রা জানান, এঘটনার পর শাহিনুর মঙ্গলবার (১৩ অক্টোবর) সন্ধ্যায় স্থানীয় প্রভাবশালী হযরত আলী ও তার ছেলে রুবেল হোসেনকে দিয়ে শালিসে বসার ব্যবস্থা করে। প্রভাবশালীরা উভয়পক্ষের বক্তব্য শুনে শাহিনুরকে ১০টি জুতার বাড়ি ও ৩০ হাজার টাকা জরিমানার রায় দেয়। তবে এ রায় ভুক্তভোগীর পরিবার মানতে রাজি না হলে সালিশ চলাকালেই তাদের ওপর হামলা চালানো হয়। পরে তারা পুলিশের শরনাপন্ন হন এবং ধর্ষণ ও মারপিটের অভিযোগে কাটাখালি থানায় পৃথক দুটি মামলা দায়ের করেন।

এঘটনার সঙ্গে জড়িতদের গ্রেপ্তার করে সর্বোচ্চ শাস্তির দাবি জানিয়েছে ভুক্তভোগী কিশোরীর পরিবার।

এবিষয়ে কাটাখালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জিল্লুর রহমান জানান, থানায় মামলা রুজু হয়েছে। ভিকটিমের জবানবন্দি নিয়ে মেডিক্যাল চেকআপ করা হয়েছে। ঘটনায় জড়িতদের গেপ্তারে অভিযান অব্যহত রয়েছে।

 

আরপি/আআ




আপনার মূল্যবান মতামত দিন:

Top