রাজশাহী সোমবার, ২১শে সেপ্টেম্বর ২০২০, ৬ই আশ্বিন ১৪২৭

রাজশাহীতে ছেলের অস্ত্রের আঘাতে বাবা খুন


প্রকাশিত:
১৪ সেপ্টেম্বর ২০২০ ১৮:৪৫

আপডেট:
২১ সেপ্টেম্বর ২০২০ ০০:১৩

প্রতীকি ছবি

রাজশাহীর মোহনপুরে পান বরজ ভাগাভাগি নিয়ে ছেলের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে বাবার মৃত্যু হয়েছে।আজ সোমবার সকাল সাড়ে ৮ আটটার দিকে মোহনপুর উপজেলার ধুরইল কলেজপাড়া এলাকায় অবস্থিত নিজ পান বরজে এ হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটে।

নিহত ব্যক্তির নাম আজিমউদ্দিন মোল্লা ওরফে আজি (৫৫)। তিনি মোহনপুর উপজেলার ধুরইল পশ্চিম পাড়া গ্রামের মৃত আব্দুল জব্বারের ছেলে। তার ১ম পক্ষের স্ত্রী ও ২ ছেলে রয়েছে। নিহত আজিম উদ্দিন ২য় পক্ষের স্ত্রীকে নিয়ে আলাদা বাড়িতে বসবাস করতেন।

এলাকাবাসি ও মোহনপুর থানা পুলিশ সুত্রে জানা গেছে, সোমবার সকালে উপজেলার ধুরইল কলেজপাড়া এলাকায় অবস্থিত নিজ পান বরজে কাজ করতে যান নিহত আজিমদ্দিন। সকাল ৮ টার দিকে আজিম উদ্দিনের ১ ম পক্ষের স্ত্রী বেবী বেগম (৪৫) ও তার দুই ছেলে রাকিবুল(২৪) ও হাসিবুর(২২)কে সাথে নিয়ে পান বরজে গিয়ে তারা জমিজমাসহ পানবরজের ভাগ চান তারা। এসময় উভয়ের মধ্য কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে সকাল সাড়ে ৮ আটটার দিকে নিহতের বড় ছেলে রাকিবুল তার বাবার বুকের উপর ছুুুরিকাঘাত করে ছোট ছেলে হাসিবুরের হাতে থাকা হাঁসুয়া দিয়ে কোপ দিলে ঘটনাস্থলে তিনি মৃত্যুবরণ করেন। তার বউ ও ছেলেরা যখন আজিমদ্দিনের সাথে তর্ক করছিল তখন সেখানে দুুু'জন প্রত্যক্ষদর্শি উপস্থিত থেকে গন্ডগোল করতে বাঁধা নিষেধ করলে তাদেরকে মারধর করে তারা। চোখের সামনে ঘটে যাওয়া এমন নারকীয় হত্যাকান্ড দেখে তারা জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন। তাদের চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এ বিষয়ে জেলা পুলিশের মুখপাত্র অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ইফতেখায়ের আলম জানান, হত্যাকান্ডের খবর পেয়ে মোহনপুর থানা কর্মকর্তা ওসি মোস্তাক আহম্মেদ, তদন্ত ওসি খালেদুর রহমান সঙ্গীয় অফিসার ফোর্স ও পরে জেলা পুলিশের অতিরিক্ত এসপি সদর সার্কেল সুমন দেব ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। ঘটনাস্থল থেকে লাশটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়েছে পুলিশ। ঘটনাস্থল থেকে হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত হাঁসুয়া উদ্ধার করা হয়েছে।

এ ঘটনায় নিহতের ২য় স্ত্রী বিলকিস বেগম বাদী হয়ে ৪ জনকে আসামী করে মোহনপুর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। আসামীরা হলেন নিহতের দুই ছেলে রাকিবুল ও হাসিবুর, তাদের মা নিহতের ১ম স্ত্রী বেবী বেগম, নিহতের ভাইরা আহসান ফকির।

মোহনপুর থানা কর্মকর্তা ওসি মোস্তাক আহম্মেদ জানান, ঘটনার পর থেকে আসামীরা পলাতক রয়েছে। আসামীদের গ্রেফতার করতে পুলিশি অভিযান অব্যাহত আছে।

 

আরপি/আআ




আপনার মূল্যবান মতামত দিন:

Top