রাজশাহী মঙ্গলবার, ২৭শে জুলাই ২০২১, ১৩ই শ্রাবণ ১৪২৮

এক ছটাক ধানও যেন নষ্ট না হয়, ছাত্ররা ফোন নাম্বার জমা দিন : রাজশাহীর ডিসি


প্রকাশিত:
২১ এপ্রিল ২০২০ ১৩:৫৩

আপডেট:
২১ এপ্রিল ২০২০ ১৬:০৯

রাজশাহীর জেলা প্রশাসক মো. হামিদুল হক

রাজশাহীর জেলা প্রশাসক হামিদুল হক বলেছেন, ‘আমরা চাই আমাদের এক ছটাক ধানও যেন নষ্ট না হয়। কারণ আমাদের ফুডগ্রীণ খুব দরকার। যারা উদ্যোগী তারা মোবাইল নাম্বারসহ তালিকা জমা দেবে তাহলে যেখানে খুশি সহযোগিতার জন্য যেতে পারবে।’

বোরো ধান কাটতে ছাত্র সংগঠনসহ বিভিন্ন সংগঠনকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়ে গতকাল ফেসবুকে পোস্ট দিয়েছিলেন জেলা প্রশাসক। সেখানে স্বেচ্ছাশ্রমে স্বাস্থ্য বিধি মেনে কৃষকের ধান কেটে দেওয়া বিষয়ে বলেন তিনি। কিন্তু অনেক ছাত্র জমায়েত হয়ে ধান কাটার বিষয়ে পুলিশ প্রশাসনের ভয় করতে থাকে।

উদ্যোগী ছাত্রদের করণীয় বিষয়ে জানতে চাইলে জেলা প্রশাসক হামিদুল হক রাজশাহী পোস্ট.কম কে বলেন, ‘উদ্যোগী ছাত্র যারা কৃষকের ধান কেটে দিতে চায় কিন্তু মাঠে নামতে ভয় পাচ্ছে । তারা যেন এগ্রিকালচার অফিস ও আমাদের লোকাল ইউএনও’র সাথে যোগাযোগ করে। তালিকাবদ্ধ হয়ে আমাদের অনেক কৃষক আছেন যাদের ধান কাটার মতো পেমেন্ট হাতে নাই তাদের সহযোগিতা করবেন। আমরা চাই আমাদের এক ছটাক ধানও যেন নষ্ট না হয়। কারণ আমাদের ফুডগ্রীণ খুব দরকার। যারা উদ্যোগী তারা মোবাইল নাম্বারসহ তালিকা এগ্রিকালচার অফিসে জমা দেবে তাহলে যেখানে খুশি সহযোগিতার জন্য যেতে পারবে’

গতকাল সোমবার ফেসবুকে দেওয়া জেলা প্রশাসকের পোস্টটি হুবহু পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হলো-
‘আর ক‘দিন পর বোরো ধান কাটবেন কৃষক।গ্রামে, ইউনিয়নে বা উপজেলা পর্যায়ে থাকা যুবক, ছাত্র, স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন, রোভার, স্কাউট, ছাত্র সংগঠন সকলে মিলে স্বেচ্ছাশ্রমে স্বাস্থ্য বিধি মেনে কৃষকের ধান কেটে দেওয়া যেতে পারে। এটিও দেশ সেবার একটি উদাহরণ হতে পারে।’

এদিকে, রাজশাহী জেলা প্রশাসকের এই আহ্বানে অনেকে কমেন্ট বক্সে স্বাগত জানিয়েছেন। প্রদ্যুত কুমার সরকার নামের একজন লিখেছেন, ‘ আসুন সবাই মিলে দেশটাকে এগিয়ে নেই। ধন্যবাদ স্যার।’ তামনুর মাহমুদ লিটন নামের আরেকজন লিখেছেন, ‘খুবই ভালো চিন্তা, স্যার।’

 

আরপি/এমএইচ



আপনার মূল্যবান মতামত দিন:

Top