রাজশাহী মঙ্গলবার, ১৫ই জুন ২০২১, ২রা আষাঢ় ১৪২৮

রাজশাহীতে দোকানপাট রাত ৩টা পর্যন্ত খোলা রাখার দাবি


প্রকাশিত:
৮ জুন ২০২১ ১৮:১৯

আপডেট:
৮ জুন ২০২১ ১৮:৩২

ছবি: রাজশাহী পোস্ট

রাজশাহীতে করোনার উর্ধ্বমুখী সংক্রমণ ঠেকাতে দোকানপাট, বিপণি বিতান রাত ৩টা পর্যন্ত খোলার রাখার দাবি জানিয়েছে অরাজনৈতিক সামাজিক সংগঠন জননেতা আতাউর রহমান স্মৃতি পরিষদ। মঙ্গলবার (৮ জুন) সকালে সংগঠনটির সভাপতি সাইদুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক আসলাম-উদ-দৌলার যৌথ এক বিবৃতিতে এ দাবি জানানো হয়।

বিবৃতিতে জননেতা আতাউর রহমান স্মৃতি পরিষদ নেতারা বলেন, চলমান লকডাউনই করোনা নিয়ন্ত্রণে সমাধান নয়। করোনা প্রতিরোধে জনসচেতনতা সবার আগে দরকার। তবে এর প্রকোপ ঠেকাতে সকল দোকানপাট, বিপণি বিতান সারাদিন; এমনকি রাত ৩টা পর্যন্ত খোলার রাখার ব্যবস্থা মানুষে-মানুষে লকডাউন জারি করতে হবে। কেননা অল্প সময় দোকানপাট খোলা থাকায় মানুষেরা হুমড়ি খেয়ে মার্কেটে যাচ্ছে। করোনার সংক্রমণ বৃদ্ধির ঝুঁকি সেখানে রয়েই যাচ্ছে। কিন্ত মার্কেট সারাদিন খোলা রাখলে সেটি হবেনা। যেকোনো সময় কেনাকাটা করতে পারবে তারা। ফলে রোধ হবে করোনা। তবে বজায় রাখতে হবে দুরত্ব। মানতে হবে স্বাস্থ্যবিধি। সেটিই হবে মানুষে-মানুষে লকডাউন।

সংগঠনের নেতারা আরো বলেন, শহরের দরিদ্র জনগোষ্ঠী খুব বিপদে। বিশেষ করে অটোরিকশাওয়ালা চরম দুর্বীষহ জীবনযাপন করছেন। একবেলা গাড়ি চালিয়ে তাদের অটোরিকশার গ্যারেজের জমার টাকাই উঠছে না। সংসার নিয়ে রয়েছেন চরম টানাপোড়েনে। ফলে সেদিকেও লক্ষ্য রেখে সবকিছু স্বাভাবিক করে মানুষে-মানুষে লকডাউন জারি করা উচিত।

এ প্রসঙ্গে জননেতা আতাউর রহমান স্মৃতি পরিষদের প্রচার সম্পাদক আমানুল্লাহ আমান বলেন, মাথা ব্যাথার ওষুধ মাথা কেটে ফেলা নয়। করোনারোধে স্বাস্থ্যবিধি মানানোর পরিবর্তে সবকিছু বন্ধ করে দিয়ে হাত পা গুটিয়ে বসে থাকা কোনো সমাধান হতে পারে না। মানুষকে লড়াইয়ের মধ্য দিয়েই পৃথিবীতে বসবাস করতে হবে। সবকিছু খুলে দেয়ার পাশাপাশি দেশের সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ারও দাবি জানান তিনি।

আরপি/ এস



আপনার মূল্যবান মতামত দিন:

Top