রাজশাহী মঙ্গলবার, ১৫ই জুন ২০২১, ২রা আষাঢ় ১৪২৮

রাজশাহীর শপিংমলে উপচে পড়া ভিড়, রাস্তায় তীব্র যানজট


প্রকাশিত:
১৩ মে ২০২১ ১৪:৫৮

আপডেট:
১৫ জুন ২০২১ ০৯:৪৬

ছবি: সংগৃহীত

রাত পোহালেই পবিত্র ঈদুল ফিতর।ঈদের আগের দিন রাজশাহীর শপিংমল থেকে শুরু করে ফুটপাত সব স্থানেই উপচে পড়া ভিড় দেখা গেছে। পাশাপাশি শহরের রাস্তায় দেখা দিয়েছে তীব্র যানজট।

বৃহস্পতিবার (১৩ মে) সকাল থেকে নগরী ঘুরে এ চিত্র দেখা গেছে। সকালে নগরীর প্রাণকেন্দ্র সাহেববাজার এলাকায় দেখা যায়, অসহনীয় যানজট। স্বচ্ছ টাওয়ার থেকে শুরু করে রাজশাহী কলেজ গেট পর্যন্ত রয়েছে যানজট। প্রায় আধা কিলোমিটারের এ পথ পাড়ি দিতে রিকশা-অটোরিকশায় সময় লাগছে কমপক্ষে ২০-২৫ মিনিট।

নগরীর আরডিএ মার্কেট ও সাহেব বাজারের বিভিন্ন জায়গায় ফুটপাতের ভিড়ের কারণে মূল রাস্তা দিয়ে হাঁটছেন মানুষ। ওভারব্রিজে বসা ভ্রাম্যমাণ দোকানে ভিড়ের কারণে রাস্তা পারাপারেও বেশিরভাগ মানুষ ব্রিজ ব্যবহার করছেন না।

যানজট মোকাবিলায় সচেতন করতে পুলিশ সদস্যরা হ্যান্ডমাইক ব্যবহার করলেও কোনো কাজই হচ্ছে না। রাজশাহী কলেজের সামনে থেকে সাহেববাজার হয়ে জিরোপয়েন্টে এসে অটোরিকশার চালক আবু জাফর (৩০) বললেন, এইটুকু পথ আসতে সময় লেগেছে ২৫ মিনিট।

নগরীর রেলগেট, লক্ষ্মীপুর, নিউমার্কেট, শিরোইলসহ অন্যান্য এলাকাতেও তীব্র জট দেখা গেছে। রাজশাহী মহানগর পুলিশের ট্রাফিক বিভাগের উপ কমিশনার অনির্বান চাকমা বলেন, শহরে কয়েকদিন ধরেই যানজট হচ্ছে। বৃহস্পতিবার যানজট আরও বেশি হয়েছে। যানজট ঠেকাতে ট্রাফিকের পাশাপাশি থানা পুলিশও কাজ করছে। তাও যানজট ঠেকানো যাচ্ছে না।

এদিকে বাজার ঘুরে দেখা গেছে, ফুটপাত থেকে মার্কেটের ভেতর সবখানেই মানুষের উপচে পড়া ভিড়। ঈদের শেষ মুহূর্তের কেনাকাটায় ব্যস্ত সবাই। স্বাস্থ্যবিধি মানা বলতে ছিল শুধু মাস্ক।

বাজারে মানুষের এমন হুড়োহুড়িতে করোনার সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ার আশঙ্কা থাকলেও ক্রেতাদের পেয়ে খুশি ব্যবসায়ীরা। আরডিএ মার্কেটের কাপড় ব্যবসায়ী খলিলুর রহমান বলেন, লকডাউনের মধ্যে ব্যবসায়ীদের অবস্থা খুব খারাপ ছিল। বাজার খুলে দেয়ায় কিছুটা ব্যবসা হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুরে বৃষ্টির কারণে ক্রেতা কমে যায়। বুধবার মার্কেটে আবার ক্রেতা বেড়েছে। বৃহস্পতিবারও মানুষের অনেক ভিড়। বেচাবিক্রিও বেশ ভালো হচ্ছে।

স্বাস্থ্যবিধির বিষয়ে জেলা প্রশাসক আবদুল জলিল বলেন, ‘মানুষ সচেতন না হলে কোনো কিছুই নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব নয়। মানুষ যদি মৃত্যুর ভয় না করে, তাহলে প্রশাসন কতটুকু স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করতে পারে! তারপরও চেষ্টা করা হচ্ছে।

আরপি / এমবি-১০



আপনার মূল্যবান মতামত দিন:

Top