রাজশাহী বৃহঃস্পতিবার, ২৫শে ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১৩ই ফাল্গুন ১৪২৭

মুক্তিযোদ্ধাকে লাঞ্চিত করে বাড়িতে হামলা, ভাঙচুর ও লুটপাট


প্রকাশিত:
২১ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ১৯:০৪

আপডেট:
২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ০৫:০৪

ছবি: সংগৃহীত

রাজশাহীর দুর্গাপুর জয়কৃষ্ণপুর গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা আ,ও,ম নুরুল আলম হিরু মাষ্টার ও তার স্ত্রীকে লাঞ্চিত করে তার বাড়িতে সন্ত্রাসী হামলা চালিয়ে ভাঙচুর ও লুটপাটে করা হয়েছে। ওই হামলায় মুক্তিযোদ্ধার ছেলে আ,ও,ম শাফিউল আলম (লিখন) (৪০) গুরুতর আহত হয়েছেন। আহত লিখনকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বর্তমানে তিনি মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছেন। ঘটনাটি ঘটেছে গত শুক্রবার বিকেলে উপজেলার মাড়িয়া ইউনিয়নের জয়কৃষ্ণপুর গ্রামে।

এঘটনায় দুর্গাপুর শুক্রবার রাতে মুক্তিযোদ্ধা নুরুল আলস হিরু মাষ্টার বাদি হয়ে দুর্গাপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। মামলা সূত্রে জানা যায়, গত শুক্রবার দুপুরে জয়কৃষ্ণপুর গ্রামের সন্ত্রাসী বাহীনি মাইনুল ইসলাম জনি, মিলু, রাজিব,শাহআলম,মমিন ও মামুনসহ ১৫/২০জনের একটি সন্ত্রাসী বাহিনী পূর্বপরিকল্পিতভাবে মুক্তিযোদ্ধা আ,ও,ম নুরুল আলম হিরু মাষ্টারের বাড়িতে হামলা চালায়।

এসময় অসুস্থ্য মুক্তিযোদ্ধা নুরুল আলম হিরু মাষ্টার ও তার স্ত্রী হাওয়া বেগম এগিয়ে আসলে তাদেরকে লাঞ্চিত করে বাড়িতে তান্ডব চালাতে থাকে। পিটিয়ে পা ভেঙে ফেলা হয় মুক্তিযোদ্ধার সন্তান লিখনের। ভাঙচুর করা হয় বাড়ির দরজা,জানালাসহ বিভিন্ন আসবাবপত্র। সেই সাথে লুট করা হয় ১০ ভরি স্বর্ণের গহনা ও ৮লাখ ৩০ হাজার টাকা।

এদিকে এমন বর্বোরোচিত ঘটনায় উপজেলা মুক্তিযোদ্ধাদের মাঝে দেখা দিয়েছে বিরুপ প্রতিক্রিয়া। তারা সন্ত্রাসীদের দ্রুত গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় আনার দাবি জানান। অন্যথায় তারা কঠোর কর্মসূচিরও দাবী জানান। এদিকে এমন তন্ডবের পরেও সন্ত্রসী বাহিনীরা বহলা তবিয়তে লাঠি হাতে দাপিয়ে বেড়াচ্ছেন এলাকায়। তাদের হুমকারে বাড়ি ফিরতে পরছেন না মুক্তিযোদ্ধার পরিবারের সন্তানরা।

দুর্গাপুর উপজেলার একাধিক মুক্তিযোদ্ধারা জানান, আ,ও,ম নুরুল আলম হিরু মাষ্টার রাজশাহী জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংঘতি পরিষদের সাবেক সভপতি ও সাবেক দুর্গাপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ছিলেন তিনি। আর এমন একজন মানুষকে লাঞ্চিত করে পরিবারে হামলা চালানো হয়েছে, এমন ঘটনায় আমরা মর্মাহত।

এমন গুণী মানুষের পরিবারে যদি এমন হয়ে থাকে তাহলে আমরা কোথায় গিয়ে দাঁড়াবো, কার কাছে গিয়ে আশ্রয় নেব। মুক্তিযোদ্ধা নুরুল আলমের বড় ছেলে সাবেক উপজেলা আওয়ামীলীগে কৃষিবিষয়ক সম্পাদক বাকিউল আলম লিটন জানান, আমার বাবা-মা ওই সন্ত্রসী বাহিনীদের হাতে লাঞ্চিত হয়েছেন। তাদের হামলার শিকার হয়েছেন ছোট ভাই লিখন। লুটপট ও ভাঙচুর করা হয়েছে বাড়ি। এই সাথে বাছের মোড়ে আওয়ামীলীগের পাটি অফিসও ভঙচুর করেছে তারা।

তিনি বর্তমানে তাদের ভয়ে এলাকায় প্রবেশ করতে পারছেন না। তাকে হত্যার উদ্দেশ্যে জয়কৃষ্ণপুর বাছেমোড়ে লাঠি ও অস্ত্রহাতে তান্ডব চালানো হচ্ছে। তিনি দ্রুত মুক্তিযোদ্ধার পরিবারকে রক্ষায় পুলিশ প্রশাসনের কাছে অনুরোধ জানান। এবিষেয় দুর্গাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হাসমত আলী জানান, মুক্তিযোদ্ধার পরিবারে হামলা এটি একটি দুঃখজন ঘটনা। হামলার ঘটনায় মামালা হয়েছে। মামলার প্রেক্ষিতে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আরপি/ এসআই-৯



আপনার মূল্যবান মতামত দিন:

Top