রাজশাহী বুধবার, ২২শে মে ২০২৪, ৯ই জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১


হাসানের ১০ উইকেটে হোয়াইটওয়াশ দ. আফ্রিকা


প্রকাশিত:
৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ২৩:১৫

আপডেট:
২২ মে ২০২৪ ২৩:৫৪

ছবি: সংগৃহীত

ব্রিসবেন আর চট্টগ্রামে ভারত ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের ঐতিহাসিক সাফল্যের পুনরাবৃত্তি হলো না রাওয়ালপিন্ডি টেস্টে। তিনশর বেশি রান তাড়া করতে নেমে শেষ দিকে রোমাঞ্চ ছড়াতে পারেনি দক্ষিণ আফ্রিকা। দুই পেসার হাসান আলী ও শাহীন শাহ আফ্রিদির দুর্দান্ত পেসে দুই টেস্টের সিরিজে তাদের হোয়াইটওয়াশ করেছে পাকিস্তান। ২০০৩ সালের পর প্রথমবার দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে টেস্ট সিরিজ জিতলো তারা।

প্রথম ইনিংসের মতো দ্বিতীয় ইনিংসেও পাঁচ উইকেট নিয়েছেন ম্যাচসেরা হাসান। ১১৪ রান দিয়ে ১০ উইকেট নিয়ে ক্যারিয়ার সেরা বোলিং তার। ২৬ বছর বয়সী ডানহাতি পেসার শেষ ইনিংসে ৬০ রান দিয়ে পাঁচ ব্যাটসম্যানকে ফেরান। আর শাহীন নিয়েছেন চার উইকেট। পেসারদের স্বর্গে অবশিষ্ট একটি উইকেট স্পিনার ইয়াসির শাহর। শেষ ম্যাচে অপরাজিত ১১৫ রান করা উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান মোহাম্মদ রিজওয়ান হয়েছেন সিরিজের সেরা খেলোয়াড়দক্ষিণ আফ্রিকাকে ৩৭০ রানের টার্গেট দেওয়া পাকিস্তান জিতেছে ৯৫ রানের বড় ব্যবধানে। ১ উইকেটে ১২৭ রানে দিনের খেলা শুরু করেছিল প্রোটিয়ারা। লাঞ্চের পর দ্বিতীয় সেশনের মাঝামাঝি সময়ে ২৭৪ রানে সফরকারীদের অলআউট করে বাবর আজমের দল। প্রথম ইনিংসে পাকিস্তান ২৭২ রান করে ২০১ রানে গুটিয়ে দেয় প্রোটিয়াদের। দ্বিতীয় ইনিংসে ২৯৮ রান করে স্বাগতিকরা।

শেষ দিন ৯ উইকেট হাতে রেখে আরও ২৪৩ রানের লক্ষ্যে মাঠে নেমেছিল দক্ষিণ আফ্রিকা। এইডেন মার্করাম ৫৯ ও রাসি ফন ডার ডাসেন ৪৮ রানে অপরাজিত ছিলেন। দিনের তৃতীয় বলেই তাদের ৯৪ রানের অবিচ্ছিন্ন জুটি ভেঙে দেন হাসান। কোনও রান যোগ করতে না পেরে ২ রানের আক্ষেপ নিয়ে বোল্ড হন ফন ডার ডাসেন।

হাসান তার দিনের তৃতীয় ওভারে ফাফ দু প্লেসিকে (৫) এলবিডাব্লিউ করেন। ৮ রানের ব্যবধানে দুই উইকেট হারালেও জয়ের স্বপ্ন আবার জাগিয়ে তোলেন মার্করাম ও তেম্বা বাভুমা। লাঞ্চের পর পর ২২১ বলে ১২ চার ও ৩ ছয়ে ক্যারিয়ারের পঞ্চম সেঞ্চুরি করেন মার্করাম। জুটিরও সেঞ্চুরি হয়। কিন্তু ১০৬ রানের এই জুটি ভেঙে দুর্দান্ত ব্রেক থ্রু আনেন হাসান। ২৪৩ বল খেলে ১০৮ রানে বিদায় নেন মার্করাম। পরের বলে অধিনায়ক কুইন্টন ডি কক ডাক মারেন ইমরান বাটের ক্যাচ হয়ে।কয়েক ওভার পর শেষ বিপজ্জনক ব্যাটসম্যান বাভুমাকে ৬১ রানে ফেরান শাহীন। জর্জ লিন্ডেকে ৪ রানে ফাহিম আশরাফের ক্যাচ বানিয়ে দ্বিতীয় ইনিংসেও ফাইফার পান হাসান। শাহীন ৯১তম ওভারে জোড়া আঘাত হানেন, তাতে ডাক মেরে মাঠছাড়া হন কেশব মহারাজ ও কাগিসো রাবাদা। পরের ওভারে ইয়াসিরের কাছে উইয়ান মুল্ডারের শেষ উইকেটের পতন হয়।

১৭ বছরেরও বেশি সময় আগে দেশের মাটিতে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ ১-০ তে জিতেছিল পাকিস্তান। এরপর এই সিরিজের আগে পাঁচটি সিরিজ খেললেও জিততে পারেনি একটিও। এবার দেশের মাটিতে সেই সাফল্য ফিরিয়ে আনলো পাকিস্তান।

আরপি/ এসআই-০৩



আপনার মূল্যবান মতামত দিন:

Top