রাজশাহী রবিবার, ২৭শে নভেম্বর ২০২২, ১৩ই অগ্রহায়ণ ১৪২৯


‘প্রাণহানির জন্য নয়, আত্মরক্ষার্থে অস্ত্র দেওয়া হয় পুলিশকে’


প্রকাশিত:
২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২ ১৮:৫৩

আপডেট:
২৭ নভেম্বর ২০২২ ০৪:১১

সংগৃহিত

কারও প্রাণহানির জন্য নয়, নিজেদের আত্মরক্ষার জন্যই পুলিশকে অস্ত্র দেওয়া হয় বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ পুলিশের বিদায়ী মহাপরিদর্শক (আইজিপি) বেনজীর আহমেদ।

বৃহস্পতিবার (২৯ সেপ্টেম্বর) দুপুরে রাজধানীর রাজারবাগ পুলিশ লাইনসে বিদায়ী সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন তিনি।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে বেনজীর আহমেদ বলেন, ‘আমি অসংখ্যবার বলেছি পুলিশের কাছে যে অস্ত্র দেওয়া হয় তা তাদের জীবন রক্ষার জন্য। পুলিশ তার দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে অস্ত্র ব্যবহার করবে শুধু তার সেফগার্ডের জন্য। কারও প্রাণহানির জন্য নয়।’

পুলিশের গুলি করা অনাকাঙ্ক্ষিত মন্তব্য করে বিদায়ী পুলিশ প্রধান বলেন, ‘পুলিশ দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে শুধুমাত্র জীবন নিরাপত্তার জন্য অস্ত্র ব্যবহার করবে। যেসব ঘটনা ঘটেছে সেগুলোতে ম্যাজিস্ট্রেসি তদন্ত হবে, বিভাগীয় তদন্ত হবে, এছাড়াও যেসব গুলি ও প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে সেই বিষয়গুলো রাষ্ট্রীয় মেকানিজম দেখবে। আমার কাছে যে অস্ত্রটি আছে সেটি জীবন রক্ষার জন্য। যে সকল ঘটনার অস্ত্র ব্যবহার করা হয়েছে দেখতে হবে সেগুলো জীবনরক্ষার জন্য নাকি অন্য কারণে ব্যবহার করা হয়েছে।

বেনজীর আহমেদ বলেন, আমি চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে পছন্দ করেছি এ কারণে যে, চ্যালেঞ্জ থাকলেই আপনি নিজেকে টেস্ট করতে পারবেন। আপনার ক্যাপাসিটি কী, আপনার যোগ্যতা কী, আপনার দক্ষতা কী। আমার নিজের টেস্ট নিজের কাছে দেয়ার সাহস আছে। এ কারণে আমি আমার ফুল ক্যারিয়ারকে ইনজয় করেছি।

‘আমি চ্যালেঞ্জ পছন্দ করি। ‌আমার পুরো ক্যারিয়ারটাই চ্যালেঞ্জের। করোনাকালীন ও আইজিপি থাকা অবস্থায় চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করেছি আসলে এটা গ্লোবাল চ্যালেঞ্জ। আমি চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে পছন্দ করেছি এ কারণে যে, চ্যালেঞ্জ থাকলেই আপনি নিজেকে টেস্ট করতে পারবেন। আপনার ক্যাপাসিটি কী, আপনার যোগ্যতা কী, আপনার দক্ষতা কী। আমার নিজের টেস্ট নিজের কাছে দেয়ার সাহস আছে। এ কারণে আমি আমার ফুল ক্যারিয়ারকে ইনজয় করেছি। দেশে-বিদেশে সবখানে আমার ক্যারিয়ারের চ্যালেঞ্জ ছিল। জাতিসংঘে থাকা অবস্থায় গ্লোবাল চ্যালেঞ্জ নিয়েও কাজ করেছি।’-যোগ করেন বিদায়ী পুলিশ প্রধান।

শেষ বয়সের সমাজের জন্য কাজ করার ইচ্ছা প্রকাশ করে বেনজীর আহমেদ বলেন, ‘আইজি হিসেবে কমিশনার হিসেবে রাষ্ট্রের মানুষ আমাকে তৈরি করেছে। বেতন সুযোগ-সুবিধা নিয়েই তো এখানে এসেছি। চাকরি করার সময়ে রাষ্ট্রের জন্য মানুষের জন্য করেছি অবসরকালীন অবশ্যই সমাজের জন্য কিছু করব। সেই সময়ও আপনাদের সঙ্গে আমি কাজ করব। সেটা ক্ষুদ্র হোক তুচ্ছ হোক ব্যক্তি পর্যায়ে হোক আমরা একসঙ্গে কাজ করব। ছোট ছোট কাজ অনেক বড় কিছু এনে দিতে পারে।

 

আরপি/ এসএইচ

 



আপনার মূল্যবান মতামত দিন:

Top