রাজশাহী শুক্রবার, ২রা ডিসেম্বর ২০২২, ১৯শে অগ্রহায়ণ ১৪২৯


আখের রস যাদের খেতে মানা


প্রকাশিত:
৬ জুন ২০২২ ১০:৪১

আপডেট:
২ ডিসেম্বর ২০২২ ১১:১২

ফাইল ছবি

জ্যৈষ্ঠের গরমে জনজীবন হয়ে উঠেছে অতিষ্ঠ। তীব্র দাবদাহে একটু স্বস্তি পেতে অনেকেই পান করেন আখের রস। ত্বক ও শরীরের জন্য বেশ উপকারি এটি। সোডিয়াম, পটাশিয়াম, ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম, আয়রনের মতো উপকারি উপাদান রয়েছে এতে। পানিশূন্যতার হাত থেকেও রক্ষা করে আখের রস। কিন্তু এই উপকারি পানীয়ই হতে পারে বিপদের কারণ।

বিশেষজ্ঞদের মতে প্রতিটি জিনিসেরই কিছু পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া রয়েছে। একসঙ্গে দুই গ্লাসের বেশি আখের রস পান করলে তা উপকারের বদলে ক্ষতির কারণ হতে পারে। আখের রস খেলে কী কী বিপদ হতে পারে জানুন।

পেটের সমস্যা

আখের রস সবসময় তাজা পান করা উচিত। কেননা ২০ মিনিটের বেশি সময় ধরে রাখলে এটি অক্সিডাইজড হয়ে যায়। ফলে শরীরের ক্ষতির কারণ হতে পারে। বেশি সময় রাখা আখের রস খেলে পেট খারাপ হওয়া ছাড়াও বমি ও মাথা ঘোরা শুরু হয়।

অনিদ্রা

অতিরিক্ত আখের রস পানে দেহে পলিকোসানলের মাত্রা বেড়ে যায়। এর ফলে অনিদ্রার সমস্যা দেখা দিতে পারে। যা পরবর্তীতে অন্যান্য মানসিক রোগের কারণ হতে পারে।

স্থূলতার কারণ

আখের রসে প্রচুর ক্যালোরি ও চিনি রয়েছে। এটি সহজেই ওজন বাড়াতে পারে। তাই, আখের রস পান করতে হবে পরিমাণমতো। চিকিৎসকরা দৈনিক সর্বোচ্চ এক গ্লাস আখের রস পানের পরামর্শ দেন।

রক্ত পাতলা করে

আখের রসে থাকা পলিকোসানল রক্ত পাতলা করে ফেলে। ফলে সহজে রক্ত জমাট বাঁধে না। এমন পরিস্থিতিতে আঘাতের কারণে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হওয়ার আশঙ্কা থাকে।

সংক্রমণের ঝুঁকি

রাস্তার পাশে থাকা আখের রস না খাওয়াই মঙ্গল। এতে সংক্রমণের ঝুঁকি বাড়ে। অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে আখ না ধুয়েই রস বের করা হয়। ফলে অনেক ধরনের পরজীবী এবং ব্যাকটেরিয়া সহজেই দেহের অভ্যন্তরে প্রবেশ করে স্বাস্থ্যের ক্ষতি করতে পারে।

আখের রস শরীরের জন্য উপকারি। তবে তা খেতে হবে বুঝেশুনে।

 

 

আরপি/এসআর-০৬



আপনার মূল্যবান মতামত দিন:

Top