রাজশাহী বুধবার, ১লা ডিসেম্বর ২০২১, ১৭ই অগ্রহায়ণ ১৪২৮

আজ ঐতিহাসিক বাবলাবন গণহত্যা দিবস


প্রকাশিত:
২৫ নভেম্বর ২০২১ ১০:৪৬

আপডেট:
২৫ নভেম্বর ২০২১ ১০:৪৬

ঐতিহাসিক বাবলাবন বধ্যভূমি

ঐতিহাসিক বাবলাবন গণহত্যা দিবস শনিবার (২৫ নভেম্বর)। বেদনাবিধুর এই দিনে একাত্তরের বিজয়ের প্রাক্কালে রাজশাহীর ১৭ স্বাধীনতাকামী বীর সন্তানকে পাকিস্তানি দোসরদের সহায়তায় তুলে নিয়ে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়।

বিজয়ের পরপর ৩১ ডিসেম্বর রাজশাহীর পদ্মাচর শ্রীরামপুর এলাকা থেকে তাদের দড়িবাঁধা মরদেহ উদ্ধার করা হয়। মরদেহ দেখতে সেদিন বোয়ালিয়া ক্লাব চত্বর পদ্মার পাড়ে জনতার ঢল নামে।

তবে দুঃখজনক হলেও সত্য, স্বাধীনতার ৪৬ বছর অতিবাহিত হলেও সরকারিভাবে বাবলাবন গণহত্যা দিবস পালন করা হয় না। বর্তমানে হত্যাকাণ্ডের স্থানটি নদীগর্ভে বিলীন হতে যাচ্ছে। সংরক্ষণের কোনো উদ্যোগ নেই।

রাজশাহী ৭নং সেক্টরের ৪নং সাব সেক্টর কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা সফিকুর রহমান রাজা জানান, পাকিস্তান জাতীয় পরিষদ সদস্য নাজমুল হক সরকার, সরকারি কর্মকর্তা আবদুল হক সরকার, অধ্যাপক মীর আব্দুল কাইয়ুম, শামসুল ইসলাম ঝাটু, অ্যাডভোকেট সুরেশ পাণ্ডে ও বীরেন সরকারসহ শত শত বাঙালি এবং বুদ্ধিজীবীকে হত্যা করা হয়েছিল ‘টি-গ্রোয়েন’ সংলগ্ন এই বাবলাবন বধ্যভূমিতে।

মুক্তিযোদ্ধা সফিকুর রহমান রাজা জানান, ওই বধ্যভূমি থেকে একই দড়িতে বাঁধা ১৭ জনের মরদেহ উদ্ধার করেছিলেন তারা। এমন হত্যাযজ্ঞের নিদর্শন রয়েছে প্রতিটি বধ্যভূমিতেই। কিন্তু বাবলাবনের মত মহানগরীর অন্য বধ্যভূমিগুলোও সংরক্ষণ করা হয়নি।

 

আরপি/ এমএএইচ-০২



আপনার মূল্যবান মতামত দিন:

Top