রাজশাহী শুক্রবার, ৩০শে সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৫ই আশ্বিন ১৪২৯

রাত পোহালেই এসএসসি পরীক্ষা, রাজশাহীতে ঝরেছে ৩০ হাজার শিক্ষার্থী


প্রকাশিত:
১৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ ০০:১৪

আপডেট:
৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২ ০০:৪২

ফাইল ছবি

বৃহস্পতিবার (১৫ সেপ্টেম্বর) সারাদেশে শুরু হতে যাচ্ছে মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এসএসসি) ও সমমানের পরীক্ষা। তবে রাজশাহী মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের আওতায় বিভাগের আট জেলার প্রায় ৩০ হাজার শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছে না।

নবম শ্রেণিতে নিবন্ধন করলেও তারা এসএসসি পরীক্ষা দিতে ফরম পূরণ করেনি। করোনা মহামারী ও বাল্যবিবাহের কারণে তারা ঝরে পড়তে পারে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

রাজশাহী শিক্ষা বোর্ডের তথ্যমতে, চলতি ব্যাচের নবম শ্রেণিতে নিবন্ধন করেছিলেন ২ লাখ ১৬ হাজার ১৩১ জন শিক্ষার্থী। কিন্তু এদের মধ্যে এসএসসি পরীক্ষা দিতে ফরম পূরণ করেছে ১ লাখ ৮৬ হাজার ২৫১ জন। অর্থাৎ ২৯ হাজার ৮৮০ শিক্ষার্থী ফরম পূরণের বাহিরে রয়েছে। যাদের ঝরে পড়া শিক্ষার্থী হিসেবে উল্লেখ করা যায়।

অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে ১ লাখ ১ হাজার ৫৩৫ ছাত্র ও ৯৫ হাজার ৬৫ জন ছাত্রী। পরীক্ষার্থীদের মধ্যে ৮৭ হাজার ৬৮৪ জন বিজ্ঞান বিভাগের, ৯৯ হাজার ৫৮২ জন মানবিক বিভাগের ও ৯ হাজার ৩৩৪ জন ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগের শিক্ষার্থী রয়েছে। রাজশাহী বিভাগের ২ হাজার ৬৭৬টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থেকে তারা পরীক্ষায় অংশ নিবে বিভাগের আট জেলার ২৭০টি কেন্দ্রে পরীক্ষা পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের মনিটরিং অ্যান্ড ইভ্যালুয়েশন উইংয়ের প্রতিবেদনে দেখা যায়, করোনার মধ্যে ২০২১ সালে দেশের ১১ হাজার ৬৭৯টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৪ লাখ ৮১ হাজার ৫৫ জন শিক্ষার্থী বার্ষিক পরীক্ষায় অংশ নেয়নি। এদের মধ্যে বাল্যবিবাহ হয়েছে ৪৭ হাজার ৪১৪ শিক্ষার্থীর। এছাড়াও শিশুশ্রমে যুক্ত হয়েছে ৭৭ হাজার ৭০৬ জন।

প্রতিবেদনে বলা হয়, দেশের ৯টি অঞ্চলের মধ্যে বাল্যবিবাহ ও শিশুশ্রমের কারণে শিক্ষার্থী অনুপস্থিতির হার সর্বোচ্চ রাজশাহী অঞ্চলে। অঞ্চলে বাল্যবিবাহের হার ১৫ দশমিক ৮২ শতাংশ এবং শিশুশ্রমের ১৮ দশমিক ৮০ শতাংশ।

এ বিষয়ে রাজশাহী শিক্ষা বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক আরিফুল ইসলাম বলেন, আমাদের দায়িত্ব শুধুমাত্র পরীক্ষার রেজিস্ট্রেশন, ফরম পূরণ, পরীক্ষা নেওয়া ও ফল প্রকাশ করা। প্রতি বছরই কিছু সংখ্যক শিক্ষার্থী ঝরে পড়ে। তবে এবার এত শিক্ষার্থী পরীক্ষার আগেই কেন ঝরে পড়েছে আমরা বলতে পারবো না।

এত বড় সংখ্যক শিক্ষার্থী ঝরে পড়া প্রসঙ্গে রাজশাহী কলেজের প্রাক্তন অধ্যক্ষ ও শিক্ষাবিদ প্রফেসর মহা. হবিবুর রহমান বলেন, করোনার সময় অনেক শিক্ষার্থী ঝরে পড়েছে। এছাড়াও আমাদের যে বাল্যবিবাহের সংস্কৃতি দুর্ভাগ্যবশত সেখানেও বড় একটা অংশের বিবাহ হয়ে গেছে। করোনার মধ্যে অনিশ্চয়তার কারণে সেটা আরও বেশি হয়েছে। আর স্বভাবতই বিয়ে হয়ে গেলে তারা লেখাপড়ায় ফিরে আসতে পারে না।

এছাড়াও দুই বছরের করোনায় প্রান্তিক শ্রেণির অভিভাবকরা তাদের সন্তানদের পড়াশোনা চালানো অভাবের কারণে অসম্ভব হয়ে পড়েছে। ফলে অনেক ছেলে কৃষি কাজে জড়িয়েছে। আবার কেউ অন্য কোনো কর্মে নিজেকে নিয়োজিত করেছে। পারিবারিক অভাব-অনটনের কারণে সবকিছু এলোমেলো হয়ে গেছে। এই ৩০ হাজার শিক্ষার্থীর মধ্যে অন্তত ২০% শিক্ষার্থীকেও পড়ার টেবিলে ফেরানো যায় না কি সেটা কর্তৃপক্ষের ভাববে বলে আশা রাখেন তিনি।

প্রসঙ্গত, আগামী ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হতে যাওয়া এসএসসি ও সমমানের লিখিত পরীক্ষা শেষ হবে পহেলা অক্টোবরে। ১০ অক্টোবর থেকে ১৫ অক্টোবর পর্যন্ত ব্যবহারিক পরীক্ষার মধ্য দিয়ে শেষ হবে এবারের আসর।

পরীক্ষার সূচী অনুযায়ী, বেলা ১১টা থেকে শুরু হয়ে দুপুর ১টা পর্যন্ত চলবে পরীক্ষা। এবারের আসরে বিকেলে কোনো পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে না। তবে প্রতিটি পরীক্ষায় পরীক্ষার্থীদের ৩০ মিনিট আগে কেন্দ্রে প্রবেশ করতে হবে।

 

 

আরপি/এসআর



আপনার মূল্যবান মতামত দিন:

Top