রাজশাহী বৃহঃস্পতিবার, ২৯শে সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৫ই আশ্বিন ১৪২৯


ঘোড়াঘাটে ঐতিহ্যবাহী পাতা খেলা অনুষ্ঠিত


প্রকাশিত:
২১ সেপ্টেম্বর ২০২২ ১৪:৪৯

আপডেট:
২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২ ২৩:৪৭

ছবি: পাতা খেলা

দিনাজপুরের ঘোড়াঘাটে গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যবাহী ‘পাতা খেলা’ অনুষ্ঠিত হয়েছে। মাঠের মাঝখানে রাখা হয়েছে একটি কলাগাছ এবং ঢোলের তালে তালে এবং তান্ত্রিকদের তন্ত্র- মন্ত্রের মাধ্যমে পাতাকে টানা হয় নিজেদের কাছে। স্থানীয় ব্যাবসায়ী আবুল খায়ের উদ্যোগে দীর্ঘদিন পর এই খেলার আয়োজন করেন। এই খেলা দেখতে মাঠে ভিড় করেন হাজারো মানুষ ।

উপজেলার ৩ নং সিংড়া ইউনিয়ের পাঁচ মাথা মোড় নামক স্থানে পাতা খেলার আয়োজন করা হয়। মঙ্গলবার বিকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত এই খেলা চলে। আশপাশের বিভিন্ন এলাকা থেকে তান্ত্রিক দল আসে। নিজ নিজ মন্ত্র দিয়ে পাতারূপী মানুষকে মাঠের মাঝখান কলা গাছ থেকে নিজের দিকে টানার প্রতিযোগিতা করেন তারা।

যে দল তাদের মন্ত্রের মাধ্যমে পাতাকে নিজের দিকে টেনে তার কাছে হাত ফেলাতে পারবে, সেই দলই প্রথম বিজয়ী হবেন।খেলায় মোট ৪টি দল অংশ গ্রহন করেন। এই খেলায় বেলোয়া গ্রাম নামক দলকে হারিয়ে সিংড়াদল বিজয়ী হয়। এ সময় প্রথম পুরস্কার হিসেবে একটি গরু উপহার পায় এবং দ্বিতীয় বিজয়ী দল হিসেবে একটি ছাগল উপহার দেয়া হয়।

বিজয়ী ছোট তান্ত্রিক সাকিব হাসান নাইম বলেন, আমার দাদা- বাবা এই পাতা খেলার সঙ্গে সম্পর্কিত ছিলেন। বর্তমানে আমিও বিভিন্ন জায়গায় এই পাতা খেলায় বিজয়ী হয়েছি। আমি ১৫ বছর ধরেই খেলার সঙ্গে সম্পৃক্ত রয়েছি ।

খেলার সময় মাঠজুড়ে নারী-পুরুষ, শিশু-কিশোরের উপচে পড়া ভিড় ছিল। দর্শক সেলিনা বলেন, ‘আমাদের গ্রামে কখনোই পাতা খেলা হয় নি। মন্ত্রের মধ্য দিয়ে মানুষ তাদের দিকে আনছে। এটা একটা অদ্ভুত খেলা।’ 

আরেক দর্শক আশরাফুল বলেন, ‘আমরা যখন ছোট ছিলাম তখনকার ঐতিহ্যবাহী ও জনপ্রিয় ছিল পাতা খেলা। আগে এই খেলা বিভিন্ন গ্রামে নিয়মিত হতো। কিন্তু কালের বিবর্তনে আজ কোথাও দেখা যায় না। তাই অনেক দিন পর এমন খেলার কথা শুনে খেলাটি দেখতে আসছি। খুব ভালো লাগলো।’

খেলার আয়োজক আব্দুল কাদের প্রধান বলেন, ‘আগে বিভিন্ন এলাকায় খেলাটি হতো বলে শুনেছি। দীর্ঘদিন ধরে আয়োজন না করায় ঐতিহ্যবাহী খেলাটি আজ হারিয়ে যেতে বসেছে। তাই খেলাটি ধরে রাখতে ও মানুষকে আনন্দ দিতে এবং প্রতিবছর এমন আয়োজন যেন করতে পারি সকলের দোয়া ও সহযোগিতা কমনা করেন।’

 

 

 

আরপি/এসআর-০৫



আপনার মূল্যবান মতামত দিন:

Top