রাজশাহী বৃহঃস্পতিবার, ২৯শে সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৫ই আশ্বিন ১৪২৯

বন্ধ হচ্ছে ১২ হাজার টাকার কম দামী স্মার্টফোন বিক্রি!


প্রকাশিত:
৯ আগস্ট ২০২২ ১৭:৫২

আপডেট:
৯ আগস্ট ২০২২ ১৮:১৬

ছবি: সংগৃহীত

বছর দুয়েক আগে চিনের সঙ্গে ভারতের সম্পর্কে নতুন করে চিড় ধরলে এ দেশে নিষিদ্ধ হয়েছিল বহু চিনা অ্যাপ। ভারতীয় বাজারে চিনা সামগ্রীর উপরও কোপ পড়েছিল। এসব সত্ত্বেও অবশ্য ভারতীয় স্মার্টফোনপ্রেমীদের মধ্যে চিনা সংস্থার ফোনের প্রতি ভালবাসায় ভাটা পড়েনি।

বেশ রমরমিয়েই বিক্রি হয়েছে বিভিন্ন চিনা কোম্পানির স্মার্টফোন (Smartphone)। কিন্তু এবার তাতে লাগাম টানতে চলেছে মোদি সরকার। শোনা যাচ্ছে, ১২ হাজার টাকার কম দামের চিনা স্মার্টফোন আর মিলবে না এ দেশে!


শাওমি, পোকো, রিয়েলমি-সহ বেশ কিছু চিনা সংস্থার ১২ হাজার অথবা ১৫০ ডলারের মধ্যে স্মার্টফোন বিক্রি হয় ভারতের বাজারে। এর মধ্যে অনেক হ্যান্ডসেটই জনপ্রিয়তা পেয়েছে। কিন্তু এবার হয়তো এসব সস্তার মোবাইল সেটগুলি বিক্রির উপর জারি হতে চলেছে নিষেধাজ্ঞা।

কিন্তু কেন এমন সিদ্ধান্তের পথে কেন্দ্র? আসলে ১৫ হাজারের নিচে ফোন মানেই অধিকাংশ ক্রেতা চিনা সংস্থার স্মার্টফোনগুলির দিকে ঝোঁকেন। এই প্রবণতাতেই ‘লক্ষ্মণ রেখা’ টানতে চাইছে সরকার। মনে করা হচ্ছে, লাভা, মাইক্রোম্যাক্সের (Micromax) মতো ভারতীয় সংস্থার ফোনের বিক্রি বাড়ানোর উদ্দেশ্যেই এ ধরনের পদক্ষেপের কথা ভাবা হচ্ছে।

রিপোর্ট বলছে, চলতি বছর জুনে ১২ হাজারের চেয়ে কম দামী ফোন থেকে কেন্দ্রের যে আয় তুলে ধরা হয়েছে, তার মধ্যে ৮০ শতাংশই এসেছে চিনা সংস্থা থেকে। অর্থাৎ এই কোম্পানিগুলির রমরমায় কার্যত কোণঠাসা ভারতীয় স্মার্টফোন প্রস্তুতকারক সংস্থাগুলি। তাই স্বাধীনতার ৭৫ বছর উদযাপনে এটিও কেন্দ্রের বড়সড় পরিকল্পনা বলেই মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল।


উল্লেখ্য, সম্প্রতি এনফোর্সমেন্ট ডিরক্টরেটের (ED) নজর রয়েছে বেশ কিছু চিনা কোম্পানিগুলির উপর। করফাঁকির অভিযোগ উঠেছে শাওমি, ওপ্পো, ভিভোর মতো নামী সংস্থাগুলির বিরুদ্ধে। এমনকী সম্প্রতি আর্থিক তছরুপের অভিযোগ ভিভোর ব্যাংক অ্য়াকাউন্টও ফ্রি করা হয়েছে। এরপর ভারতের বাজারে ১২ হাজার টাকার নিচে চিনা স্মার্টফোন বিক্রি বন্ধ হলে নিঃসন্দেহে জোর ধাক্কা খাবে শি জিংপিংয়ের দেশ।



আপনার মূল্যবান মতামত দিন:

Top