রাজশাহী বৃহঃস্পতিবার, ৩০শে মে ২০২৪, ১৭ই জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১


গ্যাস সরবরাহ আরো কমিয়ে দিচ্ছে রাশিয়া


প্রকাশিত:
২৬ জুলাই ২০২২ ২৩:৩৫

আপডেট:
৩০ মে ২০২৪ ১৩:৩৫

ছবি : রয়টার্স

রাশিয়ান জ্বালানি প্রতিষ্ঠান গ্যাজপ্রম বলেছে, রক্ষণাবেক্ষণের কাজের কারণে তার প্রধান পাইপলাইনের মাধ্যমে ইউরোপীয় ইউনিয়নের দেশগুলোতে আবারো ব্যাপকভাবে গ্যাস সরবরাহ কমিয়ে দেবে। খবর বিবিসি।

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, নর্ড স্ট্রিম-১ পাইপলাইনে আরেকটি টার্বাইন বন্ধ করলে দৈনিক গ্যাস উৎপাদন ২০ শতাংশ পর্যন্ত কমে যাবে, যা বর্তমানে সরবরাহকৃত গ্যাসকে অর্ধেকে নামিয়ে আনবে।

তবে জার্মান সরকার বলেছে, গ্যাস সরবরাহ সীমিত করার কোনো প্রযুক্তিগত কারণ নেই। তারা রক্ষণাবেক্ষণের দাবিকে অযৌক্তিক মনে করছে।

নর্ড স্ট্রীম-১ পাইপলাইন, যা রাশিয়া থেকে জার্মানিতে গ্যাস সরবরাহ করে। কয়েক সপ্তাহ ধরে আগের চেয়ে কম গ্যাস সাপ্লাই দিচ্ছে রাশিয়া। এই মাসের শুরুর দিকে রক্ষণাবেক্ষণ কাজের কারণে সম্পূর্ণরূপে ১০ দিন গ্যাস সরবরাহ বন্ধ ছিল।

রাশিয়ার গ্যাস সরবরাহ কমালে শীতের আগে ইউরোপীয় ইউনিয়নের দেশগুলোর জন্য পর্যাপ্ত গ্যাসের মজুত করা আরো কঠিন হয়ে উঠতে পারে।


রাশিয়া গত বছর ইইউতে তার ৪০ শতাংশ গ্যাস সরবরাহ করেছিল। ইউরোপীয় কমিশন দেশগুলোকে আগামী সাত মাসে গ্যাসের ব্যবহার ১৫ শতাংশ কমানোর আহ্বান জানিয়েছে রাশিয়া। সতর্ক করে জানিয়েছে, এই সরবরাহ বন্ধ হতে পারে কিংবা পুরোপুরি বন্ধ করতেও পারে তারা।

ইউরোপীয় কমিশনের প্রেসিডেন্ট উরসুলা ভন ডার লেইন বলেছেন, রাশিয়া ইইউতে সমস্ত সরবরাহ বন্ধ করে দেয়ার সম্ভাবনা একটি ‘সম্ভাব্য দৃশ্য’।

ফেব্রুয়ারিতে রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ শুরু হওয়ার পর থেকে পাইকারি গ্যাসের দাম বেড়েছে। গ্যাস সরবরাহ কমে যাওয়ায় চাহিদা মেটাতে হিমশিম খাচ্ছে ইউরোপীয় ইউনিয়নের দেশগুলো। যার ফলে ভোক্তাদের জ্বালানি বিলের উপর প্রভাব পড়েছে। বেড়েছে দাম।

গ্যাজপ্রমের ঘোষণার প্রতিক্রিয়ায় ইউক্রেনের রাষ্ট্রপতি ভলোদিমির জেলেনস্কি বলেছিলেন, এটি একটি প্রকাশ্য গ্যাস যুদ্ধ, যা রাশিয়া একটি ঐক্যবদ্ধ ইউরোপের বিরুদ্ধে চালাচ্ছে। এটি ঠিক এভাবেই বোঝা উচিত।



আপনার মূল্যবান মতামত দিন:

Top