রাজশাহী বুধবার, ২২শে মে ২০২৪, ৯ই জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১


রাজশাহীতেও ডেঙ্গু

রামেকসহ নগরীর ১৪টি এলাকায় লার্ভা সনাক্ত


প্রকাশিত:
৮ আগস্ট ২০১৯ ০৬:০৫

আপডেট:
৮ আগস্ট ২০১৯ ০৬:৫০

লার্ভা সনাক্তকালীন

রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালসহ রাজশাহী নগরীর ১৪টি স্থানে এডিস মশার লার্ভা পাওয়া গেছে। রামেকসহ নগরীর ১০০টি স্থান থেকে নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর এ তথ্য উঠে এসেছে। বুধবার রাজশাহী স্বাস্থ্য বিভাগের জরিপকৃত প্রতিবেদনের পর বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে।

ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সনাক্তকৃত লার্ভাগুলো ৭ থেকে ১০ দিনে জীবাণু বিস্তারে সক্ষম। আর সেগুলো কাউকে কামড়ানোর সাত দিনের মধ্য ওই ব্যক্তি ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হবেন।

সংগৃহীত নমুনা

লার্ভা সনাক্ত হওয়া ১৪টি স্পটের মধ্যে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ২২ নম্বর ওয়ার্ডের সামনে পড়ে থাকা ভাঙা বেসিন ও ওয়ার্ডের পাঁচটি জায়গায় জমে থাকা পানিতে এডিস মশার লার্ভার উপস্থিতি মিলেছে।

আরো পড়ুন: 

https://rajshahipost.com/health/article/34/

রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ অধ্যক্ষের বাসভবনের সামনে নারিকেলের মালায় জমে থাকা বৃষ্টির পানিতে এডিস মশার লার্ভা পাওয়া গেছে। কলেজের ফালুগনী ছাত্রীনিবাসের সামনে আইসক্রিমের বক্সে জমে থাকা পানিতেও লার্ভা পাওয়া গেছে।

নগরীর উপশহর এলাকার রংধনু টাওয়ারের পরিত্যক্ত প্লাস্টিকের ড্রামে জমে থাকা বৃষ্টির পানিতে, একই এলাকার ২২৪ নম্বর বাড়ির পরিত্যক্ত পাত্রে, তিন নম্বর সেক্টরের ১৬৪ নম্বর বাড়ির ফুলের টবে ও পরিত্যক্ত ককশিটে ও ২০১ নম্বর বাড়ির ফুলের টবে, মহানগরীর আট নম্বর ওয়ার্ডের সিপাইপাড়া এলাকার মারুফের বাড়ির সামনের নারিকেলের মালায়, একই এলাকার আরেকটি বাড়িতে ফুলের টবে, চার নম্বর ওয়ার্ডের কেশবপুরের মাসুদ রানার বাড়ির প্লাস্টিকের পাত্রে, সেলিনা বেগমের বাড়ি ফুলের টবে ও মিলনের বাড়ির টায়ারে ও মাটির পাত্রে জমে থাকা পানিতে, শিরোইল এলাকা থেকে ভদ্রা পর্যন্ত রাস্তার পাশে পুঁতে রাখা পাইপের ভেতরে, একই এলাকার ব্যবসায়ী সেলিমের টায়ারের দোকানের টায়ারে, নাসির হোসেনের দোকানের ব্যাটারির সেলে জমে থাকা পানিতে ও শুকুর আলী নার্সারির মাটির পাত্রে জমে থাকা বৃষ্টির পানিতে এডিস মশার লার্ভা পাওয়া গেছে।

রাজশাহী বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক গোপেন্দ্র নাথ আচার্য্য জানান, নগরীর ১০০টি স্থান থেকে নমুনা সংগ্রহ করে রাজশাহী জেলা সিভিল সার্জন অফিসের কিটতত্ত্ব বিভাগের তিন সদস্যের প্রতিনিধি দল। ২ থেকে ৬ আগস্ট পর্যন্ত সন্দেহজনক বিভিন্ন স্থান থেকে এগুলো সংগ্রহ করা হয়।

পরে বুধবার সকালে স্বাস্থ্য বিভাগের নিজস্ব ল্যাবে পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর রামেক হাসপাতালসহ নগরীর ১৪টি স্থানে ডেঙ্গুর লার্ভা পাওয়া গেছে।

 

আরপি/এসআর



আপনার মূল্যবান মতামত দিন:

Top