রাজশাহী মঙ্গলবার, ১৬ই জুলাই ২০২৪, ২রা শ্রাবণ ১৪৩১


রাজশাহী কলেজে পরিত্যক্ত নালার উপরে উঠছে দৃষ্টিনন্দন স্মৃতির ম্যুরাল


প্রকাশিত:
১২ ডিসেম্বর ২০২০ ২৩:৩২

আপডেট:
১৬ জুলাই ২০২৪ ১১:৫৮

রাজশাহী কলেজে পরিত্যক্ত নালার উপরে উঠছে দৃষ্টিনন্দন স্মৃতির ম্যুরাল

দৃষ্টিনন্দন লাল দালানে ঘেরা দেশসেরা রাজশাহী কলেজ ক্যাম্পাস। এখানে কালের সাক্ষী হয়ে দাঁড়িয়ে আছে প্রতিটি ভবন। পরিপাটি এ ক্যাম্পাসে ‘পরিত্যক্ত’ অবস্থায় ছিল কেবল কলা ভবনের পশ্চিমাংশ। সাড়ে চার থেকে পাঁচ বিঘা এলাকায় কখনও শিক্ষার্থীদের পদছাপ পড়েনি। পুরো এলাকা জঙ্গলে আচ্ছাদিত। এর মধ্য দিয়ে গেছে একটি বদ্ধ নালা। সেটি গিয়ে মিলেছে প্রধান সড়কে।

এ জায়গাটি আর আগের অবস্থায় থাকছে না। পরিত্যক্ত নালার ওপর নির্মাণ হচ্ছে দৃষ্টিনন্দন ম্যুরাল। যেখানে টেরাকোটায় ফুটিয়ে তোলা হচ্ছে ‘৪৭ এর দেশ ভাগ থেকে শুরু করে ’৫২’র ভাষা আন্দোলন, ’৬৬’র ছয় দফা, ‘৬৯ এর গণআন্দোলন, বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ, মুজিবনগর সরকারের শপথ, একাত্তরের মহান মুক্তিযুদ্ধ এবং ‘৭৫ এর ট্র্যজেডি।

কলেজ মসজিদের পশ্চিমাংশে গড়ে উঠছে ফুলবাগান। এর উল্টো দিকে কলাভবনের সামনের অংশে গড়ে তোলা হচ্ছে শিক্ষার্থীদের বসার উপযোগী করে।

পরিকল্পনা অনুযায়ী কাজ বাস্তবায়ন হলে পরিত্যক্ত জায়গাটি হবে ক্যাম্পাসের প্রিয় আড্ডাস্থল। কলেজ কর্তৃপক্ষ বলছে, করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলেই খুলবে কলেজ। তখন শিক্ষার্থীরা দেখবে নতুন ক্যাম্পাস। ছোট ছোট প্রকল্প নিয়ে সাজানো হয়েছে পুরো ক্যাম্পাস। শ্রেণিকক্ষ থেকে আঙিনা, বাদ পড়েনি কোনো কিছুই।

শনিবার (১২ ডিসেম্বর) দুপুরে সরেজমিনে গিয়ে ম্যুরাল নির্মাণের স্থানেই দেখা হয় অধ্যক্ষ প্রফেসর মহা. হবিবুর রহমানের সঙ্গে। দাঁড়িয়ে থেকে শ্রমিকদের কাজ তদারকি করছিলেন তিনি।

জানতে চাইলে অধ্যক্ষ হবিবুর রহমান বলেন, ‘কলেজের এ অংশটি দীর্ঘদিন অব্যবহৃত ছিল। কখনও শিক্ষার্থীদের পদছাপ পড়েনি। শিক্ষার্থীদের অবাধ বিচরণের জন্য সেখানে চত্বর নির্মাণ করা হচ্ছে। এখানে ৯ ফুট উচ্চতা এবং ৫০ ফিট প্রস্থের একটি ম্যুরাল করা হচ্ছে। নতুন স্থাপনায় নান্দনিকভাবে সাজানো হলেও সেখানে রাজশাহী কলেজের ঐতিহ্যের ছাপ স্পষ্ট থাকবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘সিলেবাসের বাইরে শিক্ষার্থীরা এ টেরাকোটায় বাঙালির ইতিহাস-ঐতিহ্য জানতে পারবে। আমরা চাই- শিক্ষার্থীরা মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উজ্জ্বীবিত হয়ে বেড়ে উঠুক।’

 

আরপি/এমএএইচ



আপনার মূল্যবান মতামত দিন:

Top