রাজশাহী মঙ্গলবার, ১৮ই জুন ২০২৪, ৫ই আষাঢ় ১৪৩১

অপসংস্কৃতি ও হতাশা কিশোর অপরাধ বৃদ্ধির প্রধান কারণ


প্রকাশিত:
১৬ মে ২০২৪ ১৬:২০

আপডেট:
১৮ জুন ২০২৪ ১১:১৩

প্রতীকী ছবি

পারিবারিক কাঠামোর দ্রুত পরিবর্তন, অপসংস্কৃতি ও হতাশা কিশোর অপরাধ বৃদ্ধির প্রধান কারণ বলে মন্তব্য করেছেন রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশের (আরএমপি) অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (ক্রাইম অ্যান্ড অপারেশনস্) সাবিনা ইয়াসমিন।

বুধবার (১৫মে) রাজশাহী মহানগরীতে কিশোর গ্যাং, সাইবার ক্রাইম, ইভটিজিং, বাল্যবিবাহ ও মাদকসেবন বিরোধী সচেতনতামূলক সভায় একথা বলেন। ইউসেফ মোমেনা বখ্‌শ টেকনিক্যাল স্কুলের অডিটরিয়ামে এ সভার আয়োজন করা হয়।

অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার সাবিনা ইয়াসমিন বলেন, একটা অসংগঠিত সমাজ ব্যবস্থায় নেতিবাচক ফল হলো কিশোর অপরাধ। তারা এলাকায় আধিপত্য বিস্তারে মাঝেমধ্যেই প্রতিপক্ষের সঙ্গে মারামারি করে। এছাড়াও তারা ইভটিজিং, চুরি, চাঁদাবাজিসহ বিভিন্ন অপরাধে জড়িয়ে পরে। তাই যেখানেই কিশোর গ্যাং দেখা যাবে, দ্রুত পুলিশকে তথ্য দিতে সহযোগিতা করতে হবে।

সাবিনা ইয়াসমিন বলেন, যে পরিবার থেকে কিশোর গ্যাং গড়ে উঠবে, সেই পরিবারকে সচেতন করতে হবে। তাদের প্রতি স্নেহ, ভালোবাসা, যত্ন বাড়াতে হবে। পরিবারের সবার মনে রাখতে হবে কিশোর গ্যাং, মাদক, ইভটিজিং একটি পরিবার, সমাজ তথা পুরো দেশকে ধ্বংসের দিকে নিয়ে যায়। সভায় ইভটিজিং, বাল্যবিবাহ, কিশোর গ্যাংসহ সামাজিক অপরাধ বিষয়ে সচেতন থাকতে স্কুল কলেজের শিক্ষার্থীদের প্রতি আহ্বান জানান।

তিনি বলেন, বর্তমান টেকনলজি নির্ভর যুগে সাইবার অপরাধীরা বিভিন্ন ধরনের ইলেক্ট্রনিক্স ডিভাইস দিয়ে বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার করে নিত্য নতুন অপরাধ সংগঠিত করছে। সাইবার বুলিংয়ের শিকার হলে বিষয়টি গোপন না রেখে আরএমপি'র সাইবার ক্রাইম ইউনিটের সহযোগিতা গ্রহণের পরামর্শ প্রদান করা হয়।

সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন, প্রতিষ্ঠানটির হেড অব টেকনিক্যাল মো: আব্দুল্লাহ আল কামালসহ অন্যান্য শিক্ষক ও শিক্ষার্থীবৃন্দ।



আপনার মূল্যবান মতামত দিন:

Top