রাজশাহী শনিবার, ২৪শে ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১২ই ফাল্গুন ১৪৩০


পবিত্র মাহে রমজান আপনার যেমন হওয়া উচিত''


প্রকাশিত:
২৭ এপ্রিল ২০২০ ০৬:৩৬

আপডেট:
২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ০৩:১৫

মু.তামিম সিফাতুল্লাহ


'চলুন সর্বপ্রথম জেনে নেই রমজান কী ? রমজান শব্দটি আরবি শব্দ। যার অর্থ জ্বালিয়ে দেওয়া তথা সমস্ত গুনাহ গুলো জ্বালিয়ে দেওয়া। আর রোজা ফারসি শব্দ। আরবীতে বলা হয় সাওম যার আভিধানিক অর্থ বিরত থাকা, আত্নসংযম করা।
পরিভাষায় রমজান বা সাওম হলো সুবহে সাদিক থেকে শুরু করে সুর্যাস্ত পর্যন্ত সকল প্রকার পানাহার, যৌন সঙ্গম এবং সকল প্রকার পাপ কাজ থেকে নিজেকে বিরত রাখাই হলো রমজান। অর্থাৎ, শুধুমাত্র পানাহার না করলেই যে রোজা পালন করা যথার্ত হয় তা নয়।
এর সাথে মহান আল্লাহর নৈকট্য লাভের উদ্দেশ্যে শরীয়তের সকল আদেশ নিষেধ মেনে চলার নামই হলো রমজান বা রোজা।
বলা যায় রমজান হলো একটি প্রশিক্ষনের মাস। অনেক ব্যক্তি রয়েছেন যারা শুধুমাত্র পানাহার ত্যাগ করে কিন্তু এর সাথে তাকওয়া অর্জনের কাজ করে না শরীয়তের আদেশ নিষেধ মান্য করেনা বলা যায় সেটি রোজা নয়।
এখন রমজান এর রোজা সঠিক ভাবে হওয়ার জন্য প্রথমত আমাদেরকে একনিষ্ঠ হতে হবে। এবং অবশ্যই রোজা ভঙ্গের যে দিক গুলো আছে সেগুলোকে খেয়াল রাখা এবং এর সাথে বিভিন্ন কর্ম সম্পাদনের মাধ্যমে আরও বেশী তাকওয়াবান হওয়া যায়।
যেমন প্রথমত বেশি বেশি কোরআন তিলাওয়াত করা, যেহেতু এই মাস হলো পবিত্র কোরআন অবতীর্ণের মাস সুতরাং বেশি বেশি কোরআন তিলাওয়াত করা একান্ত প্রয়োজনীয়। এর সাথে নিজ উদ্যোগে হাদিস পাঠ করা ও ইসলামিক সাহিত্য পাঠ করে নিজের জ্ঞানের ভান্ডার শক্তিশালী করা সম্ভব। এবং বেশি করে নফল নামাজ আদায় করা। সর্বপরি, নিজেকে ঝালানোর মাস হলো এই রমজান মাস। অন্তরকে পরিশুদ্ধ করার মাধ্যমে সুস্থ মনুষ্যত্বের পরিচয় দেওয়া একান্ত প্রয়োজনীয়। যেহেতু, বর্তমান প্রেক্ষাপট এ পৃথিবীব্যাপী এক মহামারী বিরাজমান। সুতরাং আমাদের সার্বক্ষণিক ঘরে থাকা প্রয়োজন এবং সকল স্বাস্থবীধি মেনে চলা প্রয়োজন এবং সময় নষ্ট না করে জিকির আজগার করে মহান আল্লাহর নৈকট্য লাভ করা যায়। এছাড়াও নিজের পরিবারকে সময় দেওয়া সম্ভব। সর্বপরি সরকারি সকল আদেশ মান্য করা জরুরী। এবং তারাবীর নামাজ মসজিদে ১২ জন তথা সুযোগ পেলে মসজিদে আদায় করা অন্যথায় বাসায় পরিবারের সাথে তারাবীর নামাজ আদায় করা।
পৃথিবীব্যাপী এই মহামারী থেকে মুক্তি পেতে মহাম আল্লাহর নিকট বেশি বেশি নামাজ পড়ার পর পার্থনা করা প্রয়োজন।
এই রমজান আমাদের জীবনে বয়ে আনুক অনাবিল সুখ শান্তি এবং সুস্থ মনুষ্যত্বের প্রশিক্ষন লাভে আমাদেরকে তৈরী করুক একজন আদর্শবান মানুষ।

লিখেছেন, মু.তামিম সিফাতুল্লাহ।
রাজশাহী



আপনার মূল্যবান মতামত দিন:

Top